শীতকালে আবহাওয়া স্বাভাবিক ভাবেই শুষ্ক থাকে। এই সময় ত্বক আরও বেশি শুষ্ক হয়ে যা‌য়। ত্বক কোমল ও মসৃণ করে তুলতে অনেকেই বিভিন্ন প্রসাধনী ব্যবহার করে থাকেন। তবে তাতে বিশেষ কোনও লাভ হয় না। ত্বক ভাল রাখতে প্রথমেই জানা উচিত কী কারণে ত্বক শুষ্ক হয়ে যাচ্ছে। সমস্যার মূলে গিয়ে সমাধান করা উচিত। শীতকালে ত্বক শুষ্ক হয়ে যায় যেসব কারণে-

১. অতিরিক্ত মুখ ধোয়ার কারণে শীতকালে ত্বকের স্বাভাবিক আর্দ্রতা নষ্ট হয়ে যায়। পরবর্তী বেশ কিছুক্ষণ ত্বক এমন শুষ্ক হয়েই থাকে। তাই যখন প্রয়োজন তখনই মুখ ধুয়ে নিন। পানি দিয়ে মুখ ধোয়ার পর ভাল করে ময়েশ্চারাইজার মেখে নিতে পারেন।

২. শীতকাল পড়তেই অনেকের মধ্যেই গরম পানিতে গোসল করার প্রবণতা থাকে। অতিরিক্ত গরম পানিতে গোসল করলে ত্বক ভিতর থেকে শুষ্ক হয়ে যায়। এ ছাড়াও ত্বকের বিভিন্ন সমস্যাও দেখা যায়।

৩. ত্বকের মৃত কোষ ও ময়লা দূর করা গুরুত্বপূর্ণ হলেও অত্যাধিক রাসায়নিক ব্যবহারের কারণে অনেক সময় ত্বক শুষ্ক হয়ে পড়ে। তাই ত্বকে যতটা সম্ভব কম প্রসাধনী ব্যবহার করলেই ভালো। বিশেষ করে শীতকালে।

৪. গরমকালে তুলনায় শীতকালে পানি খাওয়ার প্রবণতা কমে যায়। পানি ত্বক আদ্র রাখতে সাহায্য করে। শরীরে পর্যাপ্ত পানির অভাবে ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে পড়ে। তাই শীতকালে ত্বক সুস্থ রাখতে বেশি পরিমাণে পানি খাওয়া প্রয়োজন।

৫. শীতকালে সঠিক ময়েশ্চারাইজিং এর অভাবে ত্বক শুষ্ক হয়ে পড়ে। গোসল করার পর বা রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে নিয়মিত মুখে ক্রিম বা তেল জাতীয় কিছু মেখে নিলে ত্বক কোমল থাকে।