সারাদিন অফিস করার পর বাড়িতে ফিরে ঘরবাড়ি পরিস্কার করা কঠিন হয়ে পড়ে। আবার চারিদিকের এত ধুলো আর ধোঁয়ায় বাড়ি ঘর পরিষ্কার করে রাখলেও পরমুহূর্তে আবার অপরিস্কার হয়ে যায়। কিন্তু বাড়ি সাজানোর পাশাপাশি পরিষ্কার রাখাও সমান ভাব জরুরি। ব্যস্ত জীবনে প্রতিদিন বাড়িঘর পরিস্কার রাখার সময় পান অনেকেই। তবে একটু বুদ্ধি করলেই ছুটির দিনে বা কাজ থেকে বাড়ি ফিরেও অল্প সময় ও পরিশ্রম ব্যয় করেও ঘর পরিস্কার রাখা যায়।

কম সময়ে ঘর-বাড়ি পরিষ্কার রাখতে যা করবেন-

আসবাবের উপর দিক থেকে ঝাড়া শুরু করুন : ড্রেসিং টেবিল, আলমারি বা অন্যান্য যেকোনও আসবাবপত্রের ধুলো ঝাড়ার সময়ে নীচ থেকে নয়, উপর থেকে ঝাড়া শুরু করুন। এতে উপরের ধুলো অতি সহজেই নীচে পড়বে। সহজেই উপরের এবং নীচের ধুলো একসঙ্গে পরিষ্কার করে নেওয়া যাবে। এতে পরিশ্রমও কম হবে।

ভ্যাকুম ক্লিনার ব্যবহার করুন : বাড়িতে এমন অনেক জায়গা আছে যেমন— খাটের তলা, সোফার পিছন, আলমারির পিছন এই জায়গাগুলিতে সব সময় হাত পৌঁছয় না। ফলে এই জায়গাগুলিতে জমে থাকা ধুলো অনেক সময় দৃষ্টির আড়ালে থাকে। অথচ এই জায়গাগুলিতেই সবচেয়ে বেশি ধুলো, ঝুল জমে। তাই হাত না গেলে ঝুল ঝাড়ু বা ভ্যাকুম ক্লিনার ব্যবহার করে পরিষ্কার রাখুন।

কার্পেট পরিষ্কার রাখুন
: অনেকেই বাড়িতে কার্পেট ব্যবহার করেন। মেঝেতে পেতে রাখা কার্পেটে ধুলো আর ময়লা বেশি জমে । মাসে অন্তত এক বার করে কার্পেট কাঁচতে দিন। এ ছাড়া প্রতি দিন এক বার ভ্যাকুম ক্লিনার চালিয়ে কার্পেট পরিষ্কার রাখতে পারেন।

বইয়ের তাক ঝাড়ুন নিয়মিত
: ঘরের কোণ ছাড়াও বইয়ের তাকেও খুব দ্রুত ধুলো জমে। দু’দিন না ঝাড়লেই ধুলোর স্তূপ জমে যায়। তাই প্রতি দিন বইয়ের তাক পরিষ্কার রাখা প্রয়োজন। এতে ঘরের সৌন্দর্যও বাড়বে।

বিষয় : ঘর পরিষ্কার ঘর সাজানো

মন্তব্য করুন