পুষ্টিগুণের দিক দিয়ে টমেটোর তুলনা নেই। টমেটো রান্না করে খাওয়া যায়। এছাড়া সালাদ তৈরি করে কিংবা এমনিতেও খাওয়া যায়। ভিটামিন সি'য়ের একটি সমৃদ্ধ উৎস হচ্ছে টমেটো।  এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট প্রদাহ কমায়। এছাড়াও টমেটোয় থাকা নানা উপাদান শরীরের জন্য উপকারী।

তবে স্বাদের কারণে অনেকে আবার অতিরিক্ত টমেটো খান। কিন্তু এতে স্বাস্থ্যের উপর গুরুতর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। যেমন-

অ্যাসিডিটি :  টমেটো প্রকৃতিগতভাবেই কিছুটা টক স্বাদের। এ কারণে এটি খুব বেশি এবং প্রচুর পরিমাণে খেলে অ্যাসিডিটি বাড়তে পারে।

ত্বকের বিবর্ণতা: শুনতে আশ্চর্যজনক হলেও, অতিরিক্ত টমেটো খেলে ত্বকের স্বাস্থ্যেরও ক্ষতি হতে পারে। এতে থাকা লাইকোপিন উপাদান ত্বক বিবর্ণ করে।

অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া: টমেটোতে পাওয়া হিস্টামিন যৌগ খাওয়ার পরেই কাশি, হাঁচি, ত্বকে ফুসকুড়ি এবং গলায় চুলকানির মতো অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া হতে পারে। এ কারণে খুব বেশি টমেটো খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

অস্থিসন্ধিতে ব্যথা
:অতিরিক্ত টমেটো খেলে টিস্যুতে ক্যালসিয়াম তৈরির ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। ফলে অস্থিসন্ধির ব্যথা বাড়ারও সম্ভাবনা বাড়ে। এ কারণে যাদের আগে থেকে অস্থিসন্ধির ব্যথা আছে তাদেরকে সীমিত পরিমাণে টমেটো খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

কিডনিতে পাথর: টমেটোয় থাকা কিছু উপাদান হজমের সমস্যা করতে পারে। বেশি পরিমাণে টমেটো খেলে শরীরে ক্যালসিয়াম এবং অক্সালেট শরীরে জমা হতে পারে। ফলে কিডনিতে পাথর তৈরির ঝুঁকি বাড়ে। সূত্র : টাইমস নাও