চালানো সহজ ও নিরাপদ হওয়ায় গোটা বিশ্বেই সাাইক্লিং বেশ জনপ্রিয়। এই যানটি আরামদায়কও বটে। সাইক্লিং শরীরচর্চার জন্যও চমৎকার।

সাইক্লিং করা এক ধরণের অ্যারোবিক ব্যায়াম। এর মানে হলো সাইকেল চালানোর সময় হৃৎপিণ্ড, রক্তনালী এবং ফুসফুস সচল থাকে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কেউ যদি শরীরের বাড়তি মেদ ঝরাতে বা ফিট থাকতে চান তাহলে সাইক্লিং করতে পারেন। তবে তার আগে জানতে হবে কীভাবে সাইক্লিং করে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ ক্যালরি ঝরানো সম্ভব।

কেউ যখন অল্প গতিতে সাইকেল চালান তখন শরীর অ্যারোবিক মেটাবোলিজম ব্যবহার করে। আবার যখন দ্রুতগতিতে সাইকেল চালানো হয়, তখন শরীর অ্যানেরবিক মেটাবোলিজম ব্যবহার করে।   

দেহভঙ্গি ঠিক করুন     

অনেকেই ছেলেবেলায় সাইকেল চালানো শেখেন। কিন্তু সাইকেলে বসার জন্য দেহভঙ্গি কেমন হবে সেটা ঠিক করেন না। সাইকেল চালানোর সময় কিছু বিষয় মাথায় রাখা জরুরি। যেমন-

১. প্রথমত মাথা থেকে পা পর্যন্ত শরীরে একই ভারসাম্য থাকতে হবে।  

২. কাঁধ-হাত স্বাভাবিক ও মেরুদণ্ড সোজা রেখে সাইকেল চালাতে হবে।

৩. প্রতিদিন আগের দিনের চেয়ে বেশি ক্যালোরি ঝরানোর টার্গেট করতে হবে। যদি ওজন কমাতে চান তাহলে প্রতিদিন ৩০ মিনিট করে সাইকেল চালান। তবে ৬০ মিনিট সাইকেল চালালে শরীরের সহনশীলতা বেড়ে যায়।

৪. পাহাড়ি রাস্তায় ৩০ থেকে ৬০ মিনিট সাইকেল চালালে ক্যালোরি বেশি ঝরে।

৫. কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্যের জন্য দ্রুতগতিতে সাইকেল চালানো ভালো।

 সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া