নওগাঁর সাপাহারে ঘুমন্ত গৃহবধূর চুল কেটে নেওয়ার অভিযোগে ওই নারীর শ্বশুর ও ভাসুরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ওই নারীর শ্বশুর আশরাফ আলী (৫৫) এবং ভাসুর মোশারফ হোসেনকে (৩০) গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে বুধবার রাতে গৃহবধূ বাদী হয়ে শ্বশুর, শাশুড়ি ও ভাসুরের নামে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।

সাপাহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেকুর রহমান বলেন, ভুক্তভোগী গৃহবধূ বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন। পুলিশ মামলার আসামি ওই গৃহবধূর শ্বশুর ও ভাসুরকে গ্রেপ্তার করেছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ৪ বছর আগে আইহাই দিঘিপাড়া গ্রামের আশরাফ আলীর ছোট ছেলে জোবায়ের হোসেনের সঙ্গে ওই নারীর বিয়ে হয়। জোবায়ের পেশায় একজন নির্মাণ শ্রমিক এবং জীবিকার তাগিদে তিনি চট্টগ্রামে কাজ করেন। গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ওই গৃহবধূ তার ছোট ননদকে সঙ্গে নিয়ে নিজ কক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন। রাতে ঘুম ভাঙলে বুঝতে পারেন তার চুল গোছা ধরে কেউ কেটে ঘরের মেঝেতে ফেলে রেখেছে।

এ ঘটনায় রাতেই পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে তার বাগবিতণ্ডা হয়। পরদিন সকালে তিনি বাবার বাড়ির সদস্যদের এ খবর জানান। ওই গৃহবধূর মা সব দেখে মেয়েকে নিয়ে যেতে চাইলে শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা বাধা দেন। পরে পুলিশ ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে তার মায়ের জিম্মায় দেয়।