প্রেম ভেঙে যাওয়ার অনুভূতি অনেক কষ্টের।  তারচেয়েও কষ্টের একতরফা ভালোবাসা।  এক বিচিত্র পরিস্থিতি। কাউকে ভালোবাসেন অথচ তাকে বলতে পারছেন না, আপনার চোখের সামনে ভালোবাসার মানুষটি ঘুরে বেড়াচ্ছে আর আপনি মনে মনে দীর্ঘশ্বাস আর আড়ালে চোখের পানি মুছছেন, এটা একরকম একতরফা ।

আবার আপনি নিজের অনুভূতির কথা তাকে জানালেন অথচ তিনি পাত্তাই দিলেন না, তা হলে তা আরও বেশি কষ্টের। কারণ এ ক্ষেত্রে প্রিয় মানুষের ভালোবাসা না পাওয়ার সঙ্গে যোগ হয় প্রত্যাখ্যাত হওয়ার বেদনা আর অপমানবোধ। পরে অনেকে হয়তো ফের মাথা তুলে দাঁড়িয়ে ওঠেন, কিন্তু বুকের গভীরে ক্ষতচিহ্ন হয়ে থেকে যায়।

একতরফা ভালোবাসার কারণে যে সময়টা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, সেই কষ্ট থেকে একটু মুক্তি পাওয়ার কি কোনও উপায় নেই? কী করলে মন একটু হালকা করতে পারবেন তা জানিয়েছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা।

মানসিক প্রস্তুতি রাখুন : যে মুহূর্তে আপনার মনে কারও জন্য বিশেষ অনুভূতি দানা বাঁধছে, ঠিক তখন থেকেই আপনাকে একটু মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হবে। মাথায় রাখতে হবে যে, এই অনুভূতিটা একান্তভাবে আপনার নিজস্ব। অন্যজন সাড়া নাও দিতে পারেন। মানসিকভাবে নিজেকে প্রস্তুত রাখলে কষ্ট কম হবে।

মনের কথা চেপে রাখবেন না : চিঠি, মেসেজের মাধ্যমে হোক, মুখে হোক, মনের কথা ভালোবাসার মানুষকে জানিয়ে দিন। তা হলে তার মনের ভাবটাও বুঝে নিতে পারবেন। দীর্ঘদিন ধরে মনে আকাশকুসুম ভাবনাটাও দানা বাঁধতে পারবে না। বিপরীত দিক থেকে সাড়া না পেলে জীবনে এগিয়ে যাওয়ার পথটাও খোলা থাকবে।

কষ্ট হওয়া স্বাভাবিক : অন্য পক্ষ থেকে প্রত্যাশিত সাড়া না পেলে নিজের মনের কষ্টটাকে চেপে রাখবেন না। আবেগের দাম রয়েছে, তাকে অস্বীকার করার মানে হয় না। নিজের সঙ্গে সময় কাটান, নিজের কষ্টটাকে অনুভব করুন। ধীরে ধীরে একসময় যন্ত্রণা ফিকে হতে শুরু করবে।

স্বাস্থ্যের যত্ন নিন : প্রেমে আশানুরূপ সাড়া না পাওয়ার ঘটনা আগেও আরও অসংখ্য মানুষের জীবনে ঘটেছে, আপনার পরেও আরও অসংখ্য মানুষের জীবনে ঘটবে। মনে রাখবেন, এই কষ্ট আপনিই শুধু পাননি। তাই প্রেম না হওয়ার দুঃখে নিজেকে কষ্ট দেবেন না। ঠিকমতো খাওয়াদাওয়া করুন, হালকা ব্যায়াম করুন। শরীর সুস্থ থাকলে মাথাটাও ঠিকভাবে কাজ করবে।

আত্মবিশ্বাস ধরে রাখুন
: একটা প্রেমে সাফল্য না পাওয়াটা যেন আপনার আত্মবিশ্বাসে আঁচড় কাটতে না পারে। সুন্দর পোশাক পরুন, সুন্দর করে সেজে থাকুন। ভালো বই পড়ুন। যে সব কাজ করত ভালো লাগে, সে সব কাজে ব্যস্ত থাকুন। ধীরে ধীরে জীবনকে নতুন করে ভালো লাগতে শুরু করবে।

আশা হারাবেন না : কোনওমতেই নিরাশ হবেন না। নিজের ক্ষমতার উপরে আস্থা রাখুন, নিজের ভবিষ্যৎ তৈরির কাজে মন দিন। নিশ্চিতভাবেই একটা সুন্দর জীবন অপেক্ষা করছে আপনার জন্য।

ভালোবাসাকে আসক্তিতে বদলে যেতে দেবেন না : অনেক সময়ই পছন্দের মানুষের কাছ থেকে প্রত্যাশিত সাড়া না পেলে উদ্ভট আচরণ করেন কেউ কেউ। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার উপর সারাক্ষণ নজরদারি চালানো, ফোন করে বা মেসেজ করে বিরক্ত করা, আত্মহত্যাপ্রবণ হয়ে ওঠা, এ সবই আসক্তির লক্ষণ। কোনওমতেই এই ফাঁদে পা দেবেন না। এই মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করুন। একান্ত সম্ভব না হলে কাউন্সিলরের সাহায্য নিন।