যশোরে কারখানায় মাছের খাবারের সঙ্গে রং মিশিয়ে তৈরি হচ্ছিল গুঁড়া হলুদ ও মরিচ। সেখানে অভিযান চালিয়ে র‌্যাব-৬ যশোরের ভ্রাম্যমাণ আদালত দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছেন।

যশোর শহরের নীলগঞ্জ শ্মশানপাড়া এলাকায় রোববার দুপুরে এ কারখানায় অভিযান চালানো হয়। এসময় জব্দকৃত মাছের খাবার ও রং ধ্বংস করা হয়

র‌্যাব-৬ যশোরের কোম্পানি কমান্ডার লে. কমান্ডার এম নাজিউর রহমান জানান, তারা জানতে পারেন, নীলগঞ্জ শ্মশানপাড়ার একটি কারখানায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গুঁড়া হলুদ ও মরিচ তৈরি করে বাজারজাত করা হচ্ছে। এই সংবাদের সত্যতা যাচাই ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রোববার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর প্রায় পৌনে ২টা পর্যন্ত র‌্যাব-৬, সিপিসি-৩ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম মিকাইল ইসলামের নেতৃত্বে এ কারাখানায় অভিযান চালানো হয়।

অভিযানে র‌্যাব দেখতে পায়, কারখানা মালিক শহরের বেজপাড়া এলাকার মৃত চান্দপদ বিশ্বাসের ছেলে রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাস (৫৯) ও বারান্দি মোল্যাপাড়া এলাকার শীতল চন্দ্র অধিকারীর ছেলে দিলীপ অধিকারী (৫৮) মাছের খাবারে বিভিন্ন প্রকার রং মিশিয়ে অস্বাস্থ্যকরভাবে হলুদ, মরিচের গুঁড়া তৈরি ও বাজারজাত করছে।

এই অপরাধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে তাদের দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ ছাড়া জব্দ ২০০ কেজি মাছের খাবার ও ৫ কেজি বিভিন্ন প্রকার রং ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হয়েছে।