অনেকেই ভাবেন কম বয়সে ডায়াবেটিস হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। কিন্তু এটা মোটেও ঠিক নয়। যেকোন বয়সেই ডায়াবেটিস হতে পারে। শিশুদের মধ্যে বেশ কিছু লক্ষণ দেখা দিলে অভিভাবকদের সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। যেমন-

ক্লান্তি : বাচ্চারা অনেক কারণেই ক্লান্ত হয়ে পড়তে পারে।  তাদের শরীর দুর্বল হয়ে পড়তে পারে মাঝেমাঝে। কিন্তু সব সময়ই যদি দেখেন আপনার সন্তান হাঁপিয়ে উঠছে, তা হলে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। কারণ ক্লান্তি ডায়াবেটিসের অন্যতম উপসর্গ।

ওজনের হেরফের : যদি হঠাৎ করে শিশুর ওজনের পরিবর্তন দেখা দেয় বিশেষ করে ওজন কমে যায়, তাহলে সতর্ক হতে হবে।

খাওয়ার অনিয়ম: হঠাৎই করেই যদি শিশুর বেশি বেশি ক্ষুধা পায়, ঘন ঘন পানি খায় কিংবা ঘুমের নিয়ম বদলে যায় তাহলে সকর্ত হতে হবে।

প্রস্রাবের অনিয়ম
: খুব বেশি পানি পিপাসা পেলে বেশি পানি খাওয়া হয়ে যায়। তাই ঘন ঘন প্রস্রাব করার প্রয়োজন পড়ে। এরকম হলে সতর্ক হতে হবে।

ঝাপসা দৃষ্টি: চিকিৎসকরা মনে করেন, রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে গেলে চোখের মণি বড় হয়ে দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে যেতে পারে। শিশুদের হঠাৎ এমন সমস্যা হলে পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া প্রয়োজন।

মুখে টক গন্ধ : যাদের টাইপ ১ ডায়াবেটিস থাকে, তাদের মধ্যে কিটোঅ্যাসিডিয়োসিস তৈরি হতে পারে। যাতে করে মুখ থেকে টক বা ফল-জাতীয় গন্ধ বেরোয়। শিশুদের মুখে এমন গন্ধ পেলে সাবধান হতে হবে। তবে মনে রাখবেন, টাইপ ২ ডায়াবিটিসেও কিন্তু এই পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে।

পেটের গোলমাল : ডায়াবেটিস থাকলে শিশুর মধ্যে বমির প্রবণতা, হজমের গোলমাল, গ্যাসের সমস্যা লেগেই থাকে। তাই এমন উপসর্গ দেখলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।