আধুনিক জীবনযাত্রা, খাদ্যাভ্যাসে অনিয়ম, নিয়মিত শরীরচর্চার অভাবে যে সব অসুখ শরীরে বাসা বাঁধে তার মধ্যে অন্যতম ফ্যাটি লিভার। সহজে এই অসুখের লক্ষণ বোঝার উপায়ও থাকে না। চিকিৎসকদের মতে, প্রত্যেকের লিভারেই একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ চর্বি থাকে। কিন্তু মাত্রাতিরিক্ত চর্বি জমে গেলে তা সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

অনেকেরই ধারণা, কেবলমাত্র অ্যালকোহল পানের অভ্যাস থেকেই ফ্যাটি লিভারের সমস্যা হয়। কিন্তু এ ধারণা ঠিক নয়। ফ্যাটি লিভার দুই রকম। অ্যালকোহলিক ও নন অ্যালকোহলিক। মাত্রাতিরিক্ত অ্যালকোহল পান থেকে লিভারে চর্বি জমলে তা অ্যালকোহলিক ফ্যাট। কিন্তু দ্বিতীয় ক্ষেত্রটি মূলত খাদ্যতালিকায় অতিরিক্ত, তেল, ফ্যাট জাতীয় উপাদান বেড়ে গেলে হয়। কখনও কখনও নন অ্যালকোহলিক ফ্যাটি লিভার বংশগত কারণেও হতে পারে। সময় মতো সতর্ক না হলে এই ফ্যাটি লিভার থেকেই হতে পারে লিভার সিরোসিস।

তবে ফ্যাটি লিভারের সমস্যা ওষুধ না খেয়েও ঘরোয়া উপায়েও কমানো সম্ভব। এজন্য প্রয়োজনীয় শরীরচর্চা যেমন দরকার, তেমন খাদ্যাভ্যাসেও তেল-মসলা কমানো উচিত। সেক্ষেত্রে লিভারের দু’পাশে জমে যাওয়া চর্বি ঝরিয়ে ফেলতে অ্যাপেল সিডার ভিনেগার গরম পানিতে মিশিয়ে খেতে পারেন। আরও বেশি ভাল ফল পেতে এতে মধু শোতে পারেন। অ্যাপেল সিডার ভিনেগার অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের কাজ করে। লেবু মধুর মিশ্রণ কেবল শরীরের চর্বিই ঝরায় না, লিভারের জমে থাকা চর্বিও দূর করতে পারে। এছাড়া শরীর থেকে প্রাকৃতিকভাবে টক্সিনও বের করে দেয় লেবু।