চা বা কফি যেটাই হোক না কেন দুধ-চিনি মিশিয়ে খেলে শারীরিক নানা সমস্যা দেখা দেয়। এ কারণে এখন অনেকেই ব্ল্যাক টি না হলে কফি খান। অনেকের প্রশ্ন, এই দুটির কোনটি স্বাস্থ্যের জন্য বেশি উপকারী?

ব্ল্যাক কফি
: ব্ল্যাক কফির মধ্যে ক্যাফেইন ছাড়াও প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাসিয়াম রয়েছে। ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অফ এপিডেমিয়োলজি-তে প্রকাশিত একটি নিবন্ধে বলা হয়েছে, যারা নিয়মিত ব্ল্যাক কফি খান, তাদের মধ্যে ওবিসিটি এবং টাইপ ২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কম থাকে। এক কাপ ব্ল্যাক কফিতে জিরো ক্যালরি থাকে।


ব্ল্যাক টি : ব্ল্যাক কফির তুলনায় ব্ল্যাক টি' র মধ্যে ক্যাফেইন কম থাকে। ব্ল্যাক কফির মধ্যে কোনও স্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকে না। ব্ল্যাক টি রোগ প্রতিরোধ শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। ইউরোপিয়ান জার্নাল অফ নিউট্রিশনে প্রকাশিত নিবন্ধ অনুযায়ী নিয়মিত ব্ল্যাক টি পানে অতিরিক্ত ক্যালরি ঝরে। এক কাপ ব্ল্যাক চা-এ ২ ক্যালোরি থাকে।

তা হলে আপনার জন্য কোনটি আদর্শ
?

ব্ল্যাক কফি এবং ব্ল্যাক টি, দুটিই স্বাস্থ্যকর পানীয় হিসেবে বিবেচিত। তবে আপনি কোনটা বেছে নেবেন, তা স্থির হবে কোন ধরনের উপকার চান তার ওপরে নির্ভর করে। আপনি যদি সকালে ওয়ার্ক আউট করেন, তাহলে আপনার জন্য উপযুক্ত ব্ল্যাক কফি। কারণ সকালে ব্ল্যাক কফি খেলে বিপাকক্রিয়া অনেকটাই বেড়ে যায়। কিন্তু আপনি যদি খুব বেশি ক্যাফেইন ইনটেক করতে না চান, তাহলে ব্ল্যাক টি আপনার জন্য উপযুক্ত। যারা হাইপারটেনশন এবং অ্যাংজাইটিতে ভুগছেন, তাদের ব্ল্যাক কফি এড়িয়ে চলাই ভালো। তবে সন্ধ্যার পর কারোই ব্ল্যাক কফি খাওয়া উচিত নয়। কারণ এতে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটতে পারে।