বাংলাদেশের জন্য চীনের সবচেয়ে নিকটবর্তী প্রদেশ ইউনান। এ প্রদেশের সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক সম্প্রসারণের অমিত সম্ভাবনা রয়েছে। সেখানকার নৈসর্গিক সৌন্দর্য সহজেই উপভোগ করতে পারেন বাংলাদেশের ভ্রমণপিপাসুরা। শনিবার ঢাকায় বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে (বিবিসিএফইসি) অনুষ্ঠিত 'কালারফুল ইউনান' ইভেন্টে বক্তারা ইউনান প্রদেশকে এভাবে তুলে ধরেন।

গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী (ন্যাশনাল ডে) উপলক্ষে ইউনান প্রদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও লাইফস্টাইল পণ্যের প্রদর্শনীসহ 'কালারফুল ইউনান' নামে এ ইভেন্টের আয়োজন করা হয়। ইভেন্টে ইউনান প্রদেশের সংস্কৃতি, প্রাকৃতিক ফুল, অর্গানিক ফুডসহ অনেক পণ্য তুলে ধরা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ বলেন, ‘ইউনানের সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য-অর্থনৈতিক সম্পর্ক উন্নয়নের অনেক সম্ভাবনা রয়েছে।’

ঢাকায় নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেন, 'কালারফুল ইউনান' ঢাকা ও ইউনানের দূরত্ব খুব বেশি নয়, আকাশপথে মাত্র দুই ঘণ্টা। ইউনানের কালারফুল ভূ-প্রকৃতি, পাহাড়, প্রাকৃতিক পরিবেশ, বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতি ও খাবার পযর্টকদের সহজেই আকৃষ্ট করে। বাংলাদেশ ও ইউনানের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য উন্নয়নের এখনও অনেক সম্ভাবনা রয়ে গেছে। সাংস্কৃতিক বিনিময়সহ শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য, পযর্টন খাতে সহযোগিতা আরও বাড়তে পারে।