খাওয়াদাওয়ার পর  অনেকেই মিষ্টি খেতে পছন্দ করেন। মিষ্টি বাঙালির অন্যতম প্রিয় খাবার। অনেকে মনে করেন, মিষ্টি খেলে ওজন বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ কারণে পছন্দের হলেও এই খাবারটি এড়িয়ে চলেন। ডায়াবেটিস হলে একেবারেই মিষ্টি খাওয়া ভুলে যেতে হয়। তবে মিষ্টির যে শুধু খারাপ গুণ রয়েছে তা কিন্তু নয়। বরং বেশ কয়েকটি ভালো গুণও আছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বর্তমানে অনেকেই অ্যাসিডিটির সমস্য়ায় ভোগেন। অস্বাস্থ্যকর তেলে ভাজা খাবার খেলে এই সমস্যা আরও বাড়ে। বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতিদিনের খাদ্যাভ্যাসই এই অ্যাসিডিটির জন্য মূলত দায়ী। তবে, মিষ্টি খেলে এই সমস্যা কিছুটা কমতে পারে। গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজিস্টদের কথায়, মসলাদার, ঝাল ও তৈলাক্ত খাবার খেলে তা থেকে অ্যাসিডিটির সমস্যা বেড়ে যায়। তবে এসব খাওয়ার পর সামান্য মিষ্টি খেলে তা অ্যাসিড হওয়া কমায়। চিকিৎসকদের মতে, অতিরিক্ত অস্বাস্থ্যকর খাবার খেলে পাকস্থলী থেকে অ্যাসিড ক্ষরণের পরিমাণ বেড়ে যায়। মিষ্টি এই ক্ষরণের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে।

মিষ্টি খেলে কী ওজন বাড়ে?

ক্যালোরিই ওজন বেড়ে যাওয়ার পিছনে মূল কারণ। তাই একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের বেশি মিষ্টি না খেলে ওজন বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কাও থাকে না। মাপ বুঝে খেলে শরীর খারাপ হওয়ার আশঙ্কাও থাকে না।

ডায়াবেটিস রোগীরা কী মিষ্টি খেতে পারেন?

ডায়াবেটিস হলে মিষ্টি একেবারেই খাওয়া যায় না, চিকিৎসরা তা বলছেন না। বরং রক্তে শর্করার মাত্রা গুরুতর না হলে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে অল্প পরিমাণে মিষ্টি খাওয়া যায়। এছাড়া অনেক বিশেষজ্ঞদের কথায়, সুগার ফ্রি উপাদান দিয়ে বাড়িতে তৈরি মিষ্টি নিশ্চিন্তে খাওয়া যেতে পারে।