যে কোনো রোগের কিছু পূর্বসংকেত থাকে। বিশেষ করে সে যদি কোনো কঠিন রোগ হয়, তবে তো থাকেই। তা চিনতে পারা হলো আসল বিষয়। রোগের সংকেত যত তাড়াতাড়ি চেনা যাবে, ততই দ্রুত চিকিৎসকের সাহায্য চাওয়া যেতে পারে।

ক্যান্সারের মতো রোগের ক্ষেত্রে সংকেত চেনা কিছুটা কঠিন। কারণ, শরীরের কোন অংশে ক্যান্সার বাড়তে শুরু করেছে, তার ওপর নির্ভর করে কোন উপসর্গ সবার আগে দেখা দেবে। মস্তিস্কের ক্যান্সারের লক্ষণের সঙ্গে সব সময় মিল থাকে না ফুসফুসের ক্যান্সারের প্রাক উপসর্গের। কিন্তু ফুসফুসের ক্যান্সার বেশ দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে। ফলে তার পূর্ব লক্ষণগুলো চিনে নেওয়া দরকার। কীভাবে চিনবেন ফুসফুসের ক্যান্সারের লক্ষণ?

১) কাশি :দীর্ঘদিন ধরে কাশি হয়েই যাচ্ছে। এমন অনেক সময় ঠান্ডা লেগে হয়। কিন্তু ফুসফুসের ক্যান্সারের ক্ষেত্রে কোনো কারণ ছাড়াই কাশি হতে দেখা যায়। প্রায় বছরজুড়ে লেগেই থাকে কাশির সমস্যা।
২) শ্বাসকষ্ট : শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়ার সমস্যা বাড়ে ফুসফুসে ক্যান্সার বাড়তে থাকলে। কারণ, এই রোগের দাপটে বন্ধ হয়ে যেতে শুরু করে শ্বাস নেওয়ার পথটিও।
৩) গলা ভেঙে যাওয়া :অনেকের ক্ষেত্রেই দেখা যায় এ সমস্যা। ফুসফুসে ক্যান্সার বাড়তে থাকলে তার প্রভাব গিয়ে পড়ে নানা স্তরে। যার কারণে গলার স্বর বদলে যায়। সব সময়েই গলা ভাঙা থাকে।
৪) গায়ে ব্যথা :যে কোনো ধরনের ক্যান্সারের ক্ষেত্রেই গায়ে ব্যথা একটি বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। ফুসফুসের ক্যান্সারের ক্ষেত্রে বিশেষ করে বুক, পিঠ ও কাঁধের আশপাশে বেশি ব্যথা হতে থাকে।
৫)ক্লান্তি :ক্যান্সারের অন্যতম উপসর্গ হলো ক্লান্তি। কিন্তু ফুসফুসের ক্যান্সারের ক্ষেত্রে এই সমস্যা আরও বাড়ে। যেহেতু শ্বাস নিতে কষ্ট হয়, তাই শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা কিছুটা নিচের দিকে চলে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। আর সে কারণেই ক্লান্তিও বাড়ে।