ঢাকা রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

বজ্রপাত, ঝড়বৃষ্টির মধ্যে এসি চালানো কি ঠিক? 

বজ্রপাত, ঝড়বৃষ্টির মধ্যে এসি চালানো কি ঠিক? 

প্রতীকী ছবি

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১১ মে ২০২৪ | ১৬:০২ | আপডেট: ১১ মে ২০২৪ | ১৬:০৩

ঝড়বৃষ্টির কারণে কয়েকদিন ধরে কমেছে তীব্র তাপদাহ। কিন্তু বৃষ্টির সঙ্গে যে হারে ঝড় বা বজ্রপাত হয় তাতে দরজা জানালা খুলে রাখা যায় না। এতে অনেকসময় ঘর গুমোট হয়ে যায়। এই অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে অনেকেই ঘরে এসি চালান। কিন্তু ঝড়বৃষ্টির মধ্যে এসি চালানো কি ঠিক?

একাধিক এসি সংস্থার মতে, ঝড় বৃষ্টির মধ্যে এসি চালালে মেশিন নষ্ট হয়ে যেতে পারে। কারণ এই সময় প্রকৃতির মধ্যে প্রায় ৫ বিলিয়ন অর্থাৎ ৫০০ কোটি জুল পর্যন্ত তড়িৎ উৎপন্ন হতে পারে। এই তড়িৎ এসি মেশিনের মধ্যে প্রবাহিত হলে মুহূর্তের মধ্যে মেশিন নষ্ট হতে পারে।

সব যন্ত্রের মতোই এসির মধ্যেও সার্কিট ব্রেকার থাকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সার্কিট ব্রেকার থাকলেও এসি’র মেশিন নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এমনকি প্রাণহানিও হতে পারে। কারণ ৫০০ কোটি জুল পর্যন্ত তড়িৎ সার্কিটে প্রবেশ করলে ব্রেকার কাজ করার আগেই সেটি মেশিনে চলে যেতে পারে। আর তাতে মেশিনে উপর প্রভাব পড়তে পারে।

এখন প্রায় প্রত্যেক বাড়িতেই অনেক ধরনের ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি থাকে। এই যন্ত্রপাতিগুলিকে বিদ্যুৎ বজ্রপাতের হাত থেকে বাঁচাতে গ্রাউন্ডিং বা আর্থিং করা থাকে। সব নির্মাণেই এই আর্থিংয়ের ব্যবস্থা থাকে। কিন্তু এই আর্থিং থাকলেও এসি মেশিন নষ্ট হতে পারে। কারণ আর্থিং যে সবসময় খুব কার্যকরী হয় তা নয়। বরং আর্থিং থাকতেও দুর্ঘটনা ঘটে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ঝড়বৃষ্টি শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এসি মেশিন বন্ধ করে দেওয়াই ভালো। এর পাশাপাশি খুলে রাখতে হবে প্লাগ পয়েন্ট। খুব বেশি বৃষ্টি হলেও কিছু সময়ের জন্য এয়ার কন্ডিশনার ব্যবহার বন্ধ করে দিতে হবে। কারণ যদি বাইরের মেশিনের ভিতরে খুব বেশি পানি চলে যায়, তাহলে অনেক রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। যদিও এমন ঘটনা কম ঘটে, তারপরও সাবধান থাকা ভালো। 

আরও পড়ুন

×