ময়মনসিংহ

এ কেমন শত্রুতা!

প্রকাশ: ০৭ জানুয়ারি ২০১৯     আপডেট: ০৭ জানুয়ারি ২০১৯      

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

নান্দাইলে এভাবেই এক চাচাতো ভাইয়ের ঘরের পাশে গর্ত খুঁড়েছেন অন্য এক চাচাতো ভাই। ছবি: সমকাল

জমি বদল করতে রাজি না হওয়ায় এক ভাই অপর ভাইয়ের বসতভিটা ঘেঁষে গভীর গর্ত খুঁড়েছে, যাতে ভাইয়ের ঘরবাড়ি গর্তে ধসে পড়ে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সুন্দাইল গ্রামে। গভীর গর্ত তৈরি করার কারণে বাড়ির সব বাসিন্দা চরম ঝুঁকির মধ্যে বসবাস করছে।

সরেজমিন সোমবার সুন্দাইল গ্রামে গিয়ে জানা যায়, মো. হারিছ মিয়া, নজরুল ইসলাম ও বাচ্চু মিয়া সম্পর্কে চাচাতো ভাই। তাদের লাগোয়া প্রতিবেশী হচ্ছেন আলী উছমান। এই চারটি পরিবার দীর্ঘদিন ধরে এক উঠোনকে কেন্দ্র করে বসবাস করে আসছে। এদের মধ্যে হারিছ মিয়া পাকা ঘর তৈরির উদ্যোগ নেন। এ কারণে তিনি তার বসতভিটার সাড়ে তিন শতক জমির বদলে চাচাতো ভাই নজরুলের অন্য একটি জমি দাবি করেন। নজরুলের ওই জমিটি পেলে হারিছ তার পছন্দমতো একটি বাড়ি তৈরি করতে পারেন। কিন্তু হারিছ মিয়ার ওই প্রস্তাবে রাজি হননি নজরুল। এ নিয়ে সুন্দাইল গ্রামে বেশ কয়েকটি সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হলেও এ বিষয়টির সমাধান হয়নি।

এদিকে নতুন বাড়ি তৈরি করার প্রয়োজনে গত দুই মাস আগে হারিছ মিয়া তার নিজের বসতবাড়ি ভেঙে ফেলেন। বসতবাড়ির ভিটা সীমানা বরাবর মাটি খুঁড়ে অন্য জায়গায় স্থানান্তর করেন। প্রায় সাত ফুট গভীর গর্ত খনন করে মাটি অন্যত্র নিয়ে যাওয়ায় সেখানে বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে বাড়ির অন্য বাসিন্দাদের বসতঘর হুমকির মুখে পড়েছে। বাড়ির শিশুদের রক্ষার জন্য বিশাল গর্তের চারপাশে বাঁশের বেড়া দিয়ে রাখা হয়েছে। 

নজরুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, সাড়ে তিন শতক জমির বদলে সাড়ে আট শতক জমি দাবি করেছিল হারিছ মিয়া। তাই আমি ওই প্রস্তাবে রাজি হইনি। অভিযুক্ত হারিছ মিয়া এ বিষয়ে বলেন, আমার প্রয়োজনে আমার ভিটা আমি খুঁড়েছি। তাতে কার কী বলার আছে? প্রয়োজন পড়লে আবারও খুঁড়ে মাটি আনব।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদা আক্তার বলেন, জমির শ্রেণি পরিবর্তন করতে হলে ভূমি কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হবে। প্রতিবেশীকে ঝুঁকিতে ফেলা কোনোমতেই আইনসিদ্ধ নয়। ভুক্তভোগী আবেদন করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিষয় : শত্রুতা নান্দাইল