কলমাকান্দায় শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে যুবককে বেত্রাঘাত!

প্রকাশ: ১৮ জুন ২০১৯     আপডেট: ১৮ জুন ২০১৯      

কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি

নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার কৈলাটী ইউনিয়নের বাহাম গ্রামের মো. নাসির মীরের ছেলে মো. আরিফ মীরের(১৮) বিরুদ্ধে এক শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি সালিশে মীমাংসার কথা বলে গ্রাম্য কয়েজন মাতাব্বর ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছে বলে শিশুটির পরিবারের অভিযোগ। 

স্থানীয়রা জানায়, বাহাম গ্রামের এক কন্যা শিশু ঢাকায় গৃহকর্মীর কাজ করে। মোবাইলে তার সঙ্গে পরিচয় হয় একই গ্রামের আরিফ মীরের। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। রমজানের ঈদের আগে মেয়েটি বাড়িতে বেড়াতে আসে। পরে গত বুধবার সন্ধ্যায় আরিফ মীর মেয়েটিকে তার সঙ্গে দেখা করতে বলে। দেখা করতে গেলে মেয়েটিকে আরিফ পাশের সনুরা গ্রামে নিয়ে তার ওপর যৌন নির্যাতন চালায়। অনেকক্ষণ পরও বাড়ি না ফেরায় পরিবার ও গ্রামের লোকজন অনেক খোঁজাখুজি করে সনুরা গ্রাম থেকে তাকে উদ্ধার করে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে গ্রামের কয়েক মাতাব্বর টাকার বিনিময়ে ধামাচাপার দেওয়ার চেষ্টা করেন। এ নিয়ে গত রোববার গ্রামে সালিশ বসে। স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার হাফিজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে সালিশে ছেলেকে দোষী সাব্যস্ত করে বেত্রাঘাত করা হয়। তবে মেয়ের পরিবার এই বিচার মেনে নেয়নি। তারা এ ব্যাপারে আইনের আশ্রয় নিবে।

কৈলাটী ইউপি চেয়ারম্যান মো. রুবেল ভূঁইয়া বলেন, ইউনিয়নের বাহাম গ্রামে শিশুকে যৌন নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এ ধরণের ঘটনা সালিশ অযোগ্য অপরাধ। তারপরও নাকি এ নিয়ে গত রোববার গ্রাম্য সালিশে মীমাংসার চেষ্টা করছে ওই এলাকার মেম্বারসহ কিছু লোক।

এ বিষয়ে মেম্বার হাফিজ উদ্দিন বলেন, মোবাইলে মেয়েকে উত্যক্ত করার কথা শুনে আমরা এলাকার বেশ কিছু লোক ওই ওয়াডের্র মহিলা মেম্বার নাজমা বেগমের বাড়িতে সালিশে বসেছিলাম। স্থানীয় সকলের উপস্থিতিতে মেয়েটিকে উত্যক্ত করার শাস্তি হিসেবে ছেলেকে ১০ বার বেত্রাঘাত করা হয়েছে। সালিশে এলাকার ওয়াডের্র সাবেক মেম্বার, শিক্ষকসহ বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

 তবে কলমাকান্দা থানার ওসি মো. মাজহারুল করিম জানান, এ ব্যাপারে কোন অভিযোগ এখনও পাওয়া যায়নি।