পুলিশের অভিযান

কিশোরগঞ্জে ১৫ কিশোর আটক

প্রকাশ: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

কিশোরগঞ্জ অফিস

ছবি: গুগল

কিশোরগঞ্জে কিশোর গ্যাংয়ের অপরাধ ঠেকাতে মাঠে নেমেছে সদর মডেল থানা পুলিশ। কিশোর অপরাধী ধরতে শুরু হয়েছে সাঁড়াশি অভিযান। শনিবার সন্ধ্যায় অভিযান শুরু করে রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত পুলিশ ১৫ কিশোরকে আটক করে।

পুলিশ জানায়, শনিবার রাতে শহরের নরসুন্দা লেকসিটিতে অভিযান চালিয়ে আট কিশোরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। তাদের রাতের বেলা ঘোরাঘুরির কারণ সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ ছাড়া রোববার আরও সাতজনকে আটক করা হয়। পরে অভিভাবকরা এসে মুচলেকা দিয়ে ১২ জনকে ছাড়িয়ে নেন। আটক বাকি তিনজনের মধ্যে দু'জন চিহ্নিত ছিনতাইকারী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গত ৮ সেপ্টেম্বর জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় একাধিক বক্তা শহরে বখাটের উৎপাত ও কিশোর অপরাধী বেড়ে গেছে বলে মন্তব্য করেন। সার্বিক দিক বিবেচনা করে জেলা পুলিশ বখাটেদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে।

কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. আবুবকর সিদ্দিক সমকালকে জানান, প্রথমদিন শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত কিশোরগঞ্জ পৌরসভার হারুয়া, ফিশারি রোড, লেকপাড় ও গাইটাল এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযান অব্যাহত থাকবে।

কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ জানান, শহরের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি শতভাগ নিশ্চিত করতে সদর মডেল থানাকে কিশোর অপরাধী ও তাদের নেপথ্যে থাকা নায়কদের আটক করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে কয়েকজনকে আটক করে ইতিবাচক ফল পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, 'কিছু নিরপরাধ ব্যক্তি ধরা পড়বে। এতে চিন্তার কিছু নেই। জিজ্ঞাসাবাদে নিরপরাধ প্রমাণ হলে ছেড়ে দেওয়া হবে।'

এ ব্যাপারে সমাজ গবেষক অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম খান জানান, সাম্প্রতিক সময়ে শিশু-কিশোরদের সমাজে নানা ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। কারণ শহর ও শহরতলিতে কিশোর অপরাধীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। তাই পুলিশের বর্তমান উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই।