৮৫ হাজার টাকার 'গায়েবি' বিদ্যুৎ বিলে বিপাকে কৃষক

প্রকাশ: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

মাসে মাসে বিদ্যুৎ বিল কিছুটা কমবেশি হতেই পারে। তবে পল্লী বিদ্যুতের 'গায়েবি' বিলের খপ্পরে পড়েছেন ময়মনসিংহের এক কৃষক। ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ সদর কার্যালয় মুক্তাগাছার অধীনে ওই গ্রাহকের নামে এক মাসের বিদ্যুৎ বিল পাঠানো হয়েছে ৮৫ হাজার টাকার। অথচ এর আগের মাসেই ১৪০০ টাকার বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেছেন তিনি। এমন বিল নিয়ে বিপাকে পড়েছেন ময়মনসিংহ সদর উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের কৃষক সেকান্দর আলী। এরই মধ্যে তার বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। ওই বিল পরিশোধের জন্য পল্লী বিদ্যুতের কিছু কর্মচারী তাকে হুমকি পর্যন্ত দিচ্ছেন।

কৃষক সেকান্দর আলী প্রায় এক যুগ আগে নিজ নামে বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ নেন। তিনি বাড়িতে কয়েকটি এনার্জি লাইট, সিলিং ফ্যান, একটি ছোট্ট মোটর ও একটি ফ্রিজ ব্যবহার করে আসছেন। তিনি কোনো মাসে ১০০০, কোনো মাসে ১২০০; সর্বোচ্চ ১৭০০ টাকা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেছেন। গত জুলাই মাসে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেছেন ১৪৮০ টাকা। তবে পরের মাস অর্থাৎ আগস্টে পাঠানো হয় ৮৫ হাজার ১৬৯ টাকার বিল। এ বিশাল অঙ্কের ও অস্বাভাবিক বিদ্যুৎ বিল দেখে তিনি ২১ আগস্ট পল্লী বিদ্যুতের ম্যানেজার বরাবর লিখিত আবেদন করেন।

সেকান্দর আলীর অভিযোগ, আবেদনের পর ওই এলাকার মিটার রিডার ইমাম হোসেনসহ সমিতির কিছু অসাধু কর্মচারী তাকে পুরো টাকা জমা দিতে নানাভাবে চাপ দিচ্ছেন। এমনকি অজ্ঞাত নম্বর থেকে ফোন করে তাকে হুমকি দেওয়া হয়। এতেও তিনি বিল পরিশোধে রাজি না হওয়ায় ১৫ সেপ্টেম্বর রাতে তার বিদ্যুৎ মিটারটি ভেঙে ফেলে অজ্ঞাত দুস্কৃতকারীরা। এ ঘটনা সমিতি কর্তৃপক্ষকে জানালে পরের দিন বাড়ির লাইনটি বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। এ ঘটনার পর তিনি থানায় জীবনরক্ষায় জিডি করেন।

এ ব্যাপারে ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর জেনারেল ম্যানেজার মকবুল হোসেন বলেন, ওই গ্রাহকের নামে অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া মিটার রিডারদের অবহেলার কারণেও অস্বাভাবিক বিলের ঘটনা ঘটতে পারে। এ নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে মুক্তাগাছার ইউএনও সুবর্ণা সরকার জানান, উপজেলা চত্বরের তার সরকারি বাড়িতেও এমন অস্বাভাবিক বিদ্যুৎ বিলের ঘটনা ঘটেছিল। অভিযোগের পর সমিতি কর্তৃপক্ষ বিলটি ঠিক করে দেয়।