পার্বত্য এলাকা ছেড়ে চা বাগানে ঢুকে পড়েছিল কালো ভাল্লুকটি। চা বাগানে সাধারণত চিতাবাঘ, বাইসন, হাতি দেখা গেলেও সচরাচর ভাল্লুক দেখা যায় না। এ কারণে ভাল্লুক দেখতে ভিড় করেন স্থানীয়রা। এর মধ্যে এক যুবক আবার অতি উৎসাহী হয়ে ভাল্লুকের সঙ্গে সেলফি তুলতে যান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ভাল্লুকটি ওই যুবকের ওপর আক্রমণ চালায় এবং তাকে তুলে নিয়ে বনে চলে যায়। কিছুক্ষণের মধ্যে ওই যুবকের মাথাবিহীন দেহ দেখতে পান এলাকাবাসী।

বুধবার বিকেলে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের আলিপুরদুয়ারের মেটেলি চা বাগানে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওই যুবকের নাম দীপেশ খালকো। তিনি ওই চা বাগান এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান স্থানীয় বন দফতরের কর্মকর্তারা। ততক্ষণে পাশেই একটি ঝোপে আশ্রয় নেয় ভাল্লুকটি। ফলে দীপেশের দেহ উদ্ধার করতে যেতে পারছিলেন না বনদফতরের কর্মীরা।

এরই মধ্যে ভাল্লুকের ওপর ক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থানীয়রা। পরে তারা একজোট হয়ে প্রাণীটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলে।

সাধারণত ভারত ও ভুটানে হিমালয়ের পার্বত্য এলাকায় দেখা যায় এই কালো ভল্লুক। বিপন্ন বন্যপ্রাণী হিসাবে  তারা চিহ্নিত। শীতে উঁচু এলাকা থেকে অপেক্ষাকৃত উষ্ণ নীচু এলাকায় নেমে আসে তারা।

এদিকে, এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে স্থানীয় পরিবেশপ্রেমীরা। তাদের দাবি, পুলিশ ও বনদফতর তৎপর হলে এই ঘটনা এড়ানো যেত।