প্রাগৈতিহাসিক যুগে সাগরে রাজত্ব ছিল লম্বা ঘাড়ওয়ালা মেরুদণ্ডী প্রাণী এলাসমোসরাসের। এদের গলা ছিল জিরাফের মতো দীর্ঘ, মাথা সাপের মতো ও বিশাল দেহের আকৃতি ছিল অনেকটা হাঁসের মতো। ছিল চারটি পাখনাও। এরা দাপিয়ে বেড়াত প্রায় ২০ কোটি বছর আগে উত্তর আমেরিকার সাগরে।

ক্রেটাসিয়াস যুগের শেষ দিকে প্রায় আট কোটি বছর আগে এরা বিলুপ্ত হয়ে গেছে। ফসিল বা জীবাশ্ম পাওয়ার পর এলাসমোসরাসের দেহের গঠন সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। বিজ্ঞানীদের আগ্রহ জাগে অদ্ভুত এই আকৃতি এদের কী সুবিধা দিত, তা নিয়ে। খবর ডেইলি মেইলের।

যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব ব্রিস্টলের বিজ্ঞানীরা বলেন, লম্বা ঘাড় এই দানবীয় সরীসৃপকে পানিতে অত্যধিক শক্তিশালী করে তুলত, বাড়িয়ে দিত গতি। এরা উচ্চ গতি ও দৈহিক শক্তির কারণে অপ্রতিরোধ্য ছিল। বিশেষ করে সুবিধা পেত প্রধান খাদ্য মাছ শিকারে। এদের কিছু বৈশিষ্ট্য মিলে যায় বর্তমান যুগের জলজ স্তন্যপায়ী প্রাণী তিমি ও ডলফিনের সঙ্গে।

গবেষক সুসানা গুতারা দায়াজ বলেন, কয়েকটি থ্রিডি মডেল বানিয়ে কম্পিউটারের মাধ্যমে পরীক্ষা করে এলাসমোসরাস, প্রায় সাড়ে ছয় কোটি বছর আগে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া ইসথিসর এবং ২০ কোটি বছর আগের চার বাহুবিশিষ্ট লম্বা ঘাড়ওয়ালা প্লেসিসরের দেহের গঠন সম্পর্কে জানার চেষ্টা চালিয়েছেন তারা।