তুরস্কে শরণার্থী শিবির ছিল দুই হাজার বছর আগেও। আশপাশের অঞ্চল থেকে উচ্ছেদ হয়ে এবং নির্যাতন-নিপীড়ন থেকে বাঁচতে পালিয়ে বহু মানুষ আশ্রয় নিত সেখানে। দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় মারদিন প্রদেশের মিদিয়াত জেলায় মাটির নিচে শহর গড়ে তুলেছিলেন বসতিহারা সেসব মানুষ। ভূগর্ভস্থ এই শহরে ৭০ হাজার লোকের বসবাস ছিল। সেটি খুঁজে পেয়েছেন মারদিন মিউজিয়ামের প্রত্নতাত্ত্বিকরা।

জাদুঘরের পরিচালক ও খনন প্রকল্পের প্রধান গনি তারকান বলেছেন, মিদিয়াতের মাটির নিচে কিছু প্রাচীন গুহা আছে বলে স্থানীয়রা বিশ্বাস করেন। খননকাজের সময় প্রথমে একটি চুনাপাথরের গুহা পাওয়া যায়। এর পর সেখানে একটি থাকার জায়গার সন্ধান মেলে। খননকাজ এগিয়ে নিলে এর সঙ্গে সংযোগ পাওয়া যায় একটি জলাধার ও বড় সড়কের। সম্প্রতি সেখানে আবিস্কার হয়েছে পুরো শহর।

এতে পুরোনো অনেক নিদর্শনের সঙ্গে পাওয়া গেছে রোমান সাম্রাজ্যের মুদ্রা, কুপি, শস্যাগার ও খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের চার্চ। সে সময় খ্রিষ্ট ধর্ম গ্রহণ করলে লোকদের শাস্তি দেওয়া হতো বলে অনেক ইতিহাসবিদ লিখেছেন। মস্ত বড় ওই শহরের এ পর্যন্ত মাত্র ৫ শতাংশ আবিস্কার হয়েছে। মূল শহরটি হয়তো ৪০ লাখ বর্গফুট, যা ৬০ থেকে ৭০ হাজার লোক ধারণের জন্য পর্যাপ্ত। সূত্র :লাইভ সায়েন্স।