সৌদি আরবের মদিনায় ভিক্ষা করতে গিয়ে সেখানকার পুলিশের হাতে ধরা পড়েছেন বাংলাদেশের একজন হজযাত্রী। পরে বাংলাদেশ হজ মিশনের কর্মকর্তারা মুচলেকা দিয়ে তাকে থানা থেকে ছাড়িয়ে এনেছেন।

ওই হজযাত্রীর নাম মতিয়ার রহমান। তার বাড়ি মেহেরপুরের গাংনীতে। তিনি রাজধানীর ধানসিঁড়ি ট্রাভেল এয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে হজে গিয়েছেন।

এ ঘটনায় দেশের সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে বলে সরকারের দায়িত্বশীলরা মনে করছেন। এ প্রেক্ষিতে ধানসিঁড়ি এজেন্সির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিচ্ছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে এর মালিককে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেওয়া হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়, ওই হজযাত্রীকে গাইড করার মতো ধানসিঁড়ি এজেন্সির কোনো মোনাজ্জেম ছিল না এবং হজযাত্রীর বসবাসের বাড়ি বা হোটেল ছিল না। এটা হজযাত্রী পাঠানোর শর্তের সম্পূর্ণ পরিপন্থি।

এ কারণে হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা আইন অনুযায়ী ওই এজেন্সির বিরুদ্ধে কেন প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, তিন দিনের মধ্যে তার জবাব ধর্ম মন্ত্রণালয়ে দাখিল করার জন্য বলা হয়েছে।