বাংলাদেশে যেসব ব্যাঙ দেখতে পাওয়া যায় তার বেশিরভাগই নিরীহ প্রকৃতির। কিন্তু বিশ্বে এমন কিছু প্রজাতির ব্যাঙ রয়েছে যা অত্যন্ত ভয়ঙ্কর। এদের একটি আফ্রিকান বুলফ্রগ।খাদ্যশৃঙ্খলের ক্রম অনুযায়ী সাপে ব্যাঙ ধরে খায়। কিন্তু আফ্রিকান বুলফ্রগের ক্ষেত্রে নিয়মটি একটু ভিন্ন। সাধারণত এই ব্যাঙ সাপ ধরে খেয়ে থাকে।

এই ব্যাঙয়ের বৈজ্ঞানিক নাম ‘পাইক্সিসেফালাস অ্যাডস্পারসাস’। এটি ‘পিক্সি ফ্রগ’ নামেও পরিচিত। সাধারণত অ্যাঙ্গোলা, কেনিয়া, মোজাম্বিক, দক্ষিণ আফ্রিকা, ‍সুইজারল্যান্ড, তানজানিয়া, জাম্বিয়া, জিম্বাবুয়ে প্রভৃতি দেশে এদের দেখা যায়।

আকৃতির দিক থেকে অন্যতম বড় ব্যাঙ আফ্রিকান বুলফ্রগ। এর পুরুষ ব্যাংয়ের ওজন ১.৪ কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। অন্যদিকে, মেয়ে ব্যাঙ পুরুষের আকারের অর্ধেক হয়। এদিক থেকে এগুলো একটু ব্যতিক্রম কারণ বেশিরভাগ উভচর প্রাণীর ক্ষেত্রে মেয়েদের তুলনায় পুরুষের আকার ছোট হয়।

এবার আসা যাক এদের খাদ্যাভাসের দিকে। সাধারণত আফ্রিকান বুলফ্রগ মাংসাশী প্রাণী। পোকামাকড়, ছোট ইঁদুর, সাপ, ছোট পাখি, মাছসহ অন্য উভচর প্রাণীদের খেয়ে তারা জীবনধারণ করে। এটা এতটাই মাংসাশী যে মাঝে মাঝে নিজের ব্যাঙাচিও খেয়ে ফেলে।

আফ্রিকার প্রিটোরিয়া চিড়িয়াখানায় রাখা একটি আফ্রিকান বুলফ্রগ একবার ১৭টি রিনখালস সাপের বাচ্চা খেয়ে নিয়েছিল। রেগে গেলে এরা প্রচণ্ড জোরে শব্দ করে। এদেরকে বেশিরভাগ সময় বন্দি করে রাখা হয়। কখনও রেগে গেলে তীক্ষ্ণ দাঁত দিয়ে মানুষকেও কামড় দেয় আফ্রিকান বুলফ্রগ।