দেশমাতৃকার উন্নয়নে শিক্ষায় উন্নত বাংলাদেশ সৃজন এবং রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে বাউবি কাজ করছে। সবার জন্য উন্মুক্ত কর্মমুখী, গণমুখী ও জীবনব্যাপী শিক্ষা- এই দীক্ষা নিয়ে বাউবি বর্তমানে এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার সঙ্গে কর্মসংস্থানের সংযোগ তৈরির লক্ষ্যে ২৯ বছর আগে ১৯৯২ সালের ২১ অক্টোবর প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়। মেধাবী হওয়া সত্ত্বেও সময়-সুযোগের অভাবে যারা নিয়মিত প্রতিষ্ঠানে গিয়ে পড়তে পারছেন না, বাউবি তাদের উপযোগী করেই শিক্ষা কাঠামো তৈরি করেছে। ভৌগোলিক সীমারেখা ছাড়িয়ে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন ও মিডিয়াভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম দেশে-বিদেশে ব্যাপক বিস্তৃতি লাভ করেছে। আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ও লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম কাজে লাগিয়ে দক্ষ জনশক্তি গঠন, মানবসম্পদ তৈরি, নারী শিক্ষার প্রসার ও পেশাগত শিক্ষার প্রয়োজনে বাউবি নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। 

এই বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা কার্যক্রম চালু থাকায় বাউবির শিক্ষা ব্যবস্থাপনায় গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন এসেছে।এটি এখন তথ্যপ্রযুক্তিতে স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। পৃথিবীর যে কোনো প্রান্ত থেকে অনলাইনের মাধ্যমে ভর্তি, রেজিস্ট্র্রেশন, পরীক্ষার ফল প্রকাশ, ই-বুক, ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটার, ওপেন বাংলা ওয়েব টিভি, ওপেন বাংলা ওয়েব রেডিও, বাউবি টিউব, বাউবি অ্যাপস এবং ই-প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এখন বিশ্বব্যাপী প্রযুক্তিবান্ধব শিক্ষাধারা গড়ে তুলেছে। রয়েছে আইসিটিভিত্তিক গবেষণা কার্যক্রম। বিদেশে অবস্থানরত বাঙালিদের মাঝে শিক্ষাসেবা বিতরণের জন্য সৌদি আরব, কাতার এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় বাউবির শিক্ষা কার্যক্রম চালু হয়েছে। এ ছাড়া দুবাই, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া এবং যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাংলাদেশিদের জন্য বাউবি শিক্ষা কার্যক্রম চালুর উদ্যোগ নিয়েছে।

গতিশীলতা ও মানবসম্পদের উন্নয়নে চালু করা হয়েছে এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্ল্যানিং, শিক্ষা ব্যবস্থাপনা স্টোরেজ ও তথ্য সমৃদ্ধির জন্য ওপেন এডুকেশন রিসোর্স, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী সবার কাছে দ্রুত তথ্য প্রদানের জন্য রয়েছে মোবাইল এসএমএস কমিউনিকেশন সিস্টেম এবং প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তার জন্য আইপি নেটওয়ার্ক। বাউবির রয়েছে নিজস্ব মোবাইল অ্যাপস, যাতে মোবাইলের প্লেস্টোরের মাধ্যমে বাউবির তথ্য ও শিক্ষা প্রোগ্রাম সম্পর্কে জানার সুযোগ রয়েছে। সময়ের চাহিদার সঙ্গে মিল রেখে বাউবি নিড বেজড প্রোগ্রাম চালুর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। রয়েছে মাস্টার্স অব ডিজঅ্যাবিলিটি ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন, মাস্টার্স ইন পাবলিক হেলথ, পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল আলট্রা সাউন্ড, মাস্টার্স অব সায়েন্স ইন এগ্রিকালচারাল সায়েন্সেস, মাস্টার্স ইন সাসটেইনেবল এগ্রিকালচার অ্যান্ড রুরাল লাইভলিহুড প্রোগ্রামসহ ৫৭টি প্রোগ্রাম। আইসিটি বেজড ইংলিশ লার্নিং ও ব্রিটিশ কাউন্সিলের সহায়তায় ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ টিচিং প্রোগ্রাম চালুর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। বিভিন্ন বিষয়ের ওপর অনার্স, মাস্টার্স, এমফিল ও পিএইচডি প্রোগ্রাম চালু করে বাউবি উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রেও অবদান রেখে চলেছে।

সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সদস্যরা কর্মস্থলে থেকে অনলাইন কার্যক্রমের আওতায় বাউবির এসএসসি, এইচএসসি, নিশ-১ ও নিশ-২ শিক্ষা প্রোগ্রামের মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা সুবিধা পাচ্ছেন। মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে ভর্তি, রেজিস্ট্র্রেশনসহ একাডেমিক তথ্য সরবরাহ করা হয়ে থাকে। রয়েছে সার্বক্ষণিক হেল্পলাইন সার্ভিস। সর্বাধুনিক তথ্যপ্রযুক্তিসমৃদ্ধ নিজস্ব মিডিয়া সেন্টার সেখানে রয়েছে অত্যাধুনিক স্টুডিও, অত্যাধুনিক গুণগত মানসম্পন্ন এডিটিং প্যানেল। স্থাপিত হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন প্রকল্প এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের বিডিরেন প্রকল্পের মাধ্যমে ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি সমৃদ্ধকরণে কাজ করে যাচ্ছে। বাউবির দূরশিক্ষণ কার্যক্রম ও তথ্যপ্রযুক্তির শিক্ষা বিশ্বমানের। সরকারের এমডিজি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে।

লেখক: পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত), তথ্য ও গণসংযোগ বিভাগ, বাউবি