পঞ্চপাণ্ডবের চার পাণ্ডব কত দিন পরই না একসঙ্গে হলেন। যাদের কোলাহলে মুখর হলো মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠ। অনুশীলনের ফাঁকে চুটিয়ে আড্ডা দেওয়া, স্মৃতিরোমন্থন, খুনসুটি কত কিই না ছিল মাশরাফিদের মিলন মেলায়। এই আড্ডা আরও প্রাণবন্ত হতে পারত সাকিব থাকলে। ক্রিকেটারদের এভাবে একমঞ্চে আসার সুযোগ করে দিয়েছে অষ্টম বিপিএল টি২০ টুর্নামেন্ট।

২১ জানুয়ারি থেকে খেলা মাঠে গড়ালেও দলগুলো প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। দেশি ক্রিকেটাররা বিপিএলের ডামাডোলে এসে গেছেন। বিদেশি ক্রিকেটাররাও যোগ দিচ্ছেন দলের সঙ্গে। বিদেশিদের কেউ কেউ ঢাকায় পৌঁছে গেছেন। আজ ঢাকায় পা রাখবেন একটা বড় সংখ্যক বিদেশি। নিউ নরমাল সময়ে বায়োসিকিউর বাবলে ক্রিকেটারদের আসল মিলন মেলা দেখা যাবে ১৮ জানুয়ারি থেকে। এদিন হোটেলে উঠবেন ছয় দলের ক্রিকেটাররা।

গতকাল দেশি ক্রিকেটারদের নিয়ে সীমিত পরিসরে অনুশীলন করেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, ফরচুন বরিশাল ও মিনিস্টার ঢাকা। বিসিএল ও জাতীয় দলের খেলা নিয়ে ব্যস্ত থাকায় একটা বড় সংখ্যক ক্রিকেটারই প্রথম দিনের অনুশীলনে যোগ দিতে পারেননি। নিউজিল্যান্ডে টেস্ট জয়ী ক্রিকেটারদের অনেককেই দেখা যেতে পারে আজ মিরপুরে। গতকাল যেমন এসেছিলেন নুরুল হাসান সোহান। যদিও নিউজিল্যান্ডে দুই টেস্ট খেলা অনেক ক্রিকেটারই অনুশীলনে পরে যোগ দেবেন। এতে অবশ্য উৎসবে ভাটা পড়বে না। বরং ২৪ ঘণ্টার কোয়ারেন্টাইন শেষ করে বিদেশি ক্রিকেটাররা মাঠে নামলেই বিপিএলের আসল আমেজ ছড়িয়ে পড়বে।

নিউ নরমাল সময়ে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো সীমিত পরিসরেও খেলার বাইরের কার্যক্রম চালাচ্ছে। আজ যেমন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ও মিনিস্টার ঢাকা লোগো ও জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠান রেখেছে। কাল জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠান করবে ফরচুন বরিশাল। টুর্নামেন্টের আয়োজক বিসিবিও শেষ সময়ের কাজ গুছিয়ে নিচ্ছে। অষ্টম বিপিএলকে নিখুঁত করতে ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম পাওয়ার জন্য আইসিসির শরণাপন্ন হয়েছে বোর্ড।

বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরীর মতে, 'এই চ্যালেঞ্জগুলো বর্তমান পরিস্থিতির কারণে। কাল (শনিবার) আমি ব্যক্তিগতভাবে আইসিসির সঙ্গেও কথা বলেছি, কারণ আইসিসিরও একটা সোর্স আছে। আইসিসির বিভিন্ন ইভেন্টে যারা কাজ করেন তাদের সঙ্গেও আমরা কাজ করেছি। আপনারা দেখছেন, প্রচুর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হচ্ছে। হক আই আমাদের যা বলেছে, ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ জনবল কাজ করছে। প্রযুক্তি আছে, কিন্তু জনবল পাওয়াই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে গেছে। তারা সিদ্ধান্ত নিতে খুব চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হচ্ছে। তার পরও ওরা বলেছে- যেহেতু আমরা সরাসরি যোগাযোগ করছি, যদি কেউ আসতে পারে তাদের ব্যবস্থা করা যায় কিনা দেখবে। আমরা সেভাবেই যোগাযোগ রাখছি।'

করোনা আক্রান্তের হার বেড়ে যাওয়া এই প্রথম দর্শক ছাড়া হতে যাচ্ছে বিপিএল টি২০ টুর্নামেন্ট। এতে মাঠের উন্মাদনা কম থাকলেও টিভিতে খেলা উপভোগ করতে পারবেন দর্শক। সবচেয়ে বেশি যারা উপভোগ করবেন তারা হলেন ক্রিকেটার। বর্তমান ও সাবেক সতীর্থদের সঙ্গে মন খুলে কথা বলতে পারবেন। গতকাল যেমন বলেছেন পঞ্চপাণ্ডবের চার পাণ্ডব।