গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের কূটনীতিবিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিউদ্দিন আহমদকে প্রতিবছর স্মরণ করা এবং স্কুল বইতে তার জীবনী পড়ানো আবশ্যিক দায়িত্ব হিসেবে বিবেচিত হওয়া উচিত।

মঙ্গলবার এক শোকবাণীতে তিনি এ কথা বলেন।

ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, সাহসী কূটনীতিবিদ ছিলেন মহিউদ্দিন আহমদ। বিদেশস্থ প্রথম পাকিস্তানি কূটনীতিবিদ যিনি পাকিস্তানের সব প্রকার সুযোগ সুবিধা অগ্রাহ্য করে আর্থিক দুরবস্থার মধ্যে বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরীর পরামর্শক ও সহায়তাকারী হিসেবে বাংলাদেশের মুক্তি আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছেন। সাধারণ জীবন যাপন করতেন, তার নিজস্ব কোনো গাড়ি ছিল না, উত্তরা তার বাসভবন থেকে তিনি পাবলিক বাসে চলাফেরা করতেন।

মহিউদ্দিন আহমদের মুত্যুতে দেশের অপূরণীয় ক্ষতি হলো জানিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, লন্ডনস্থ ‘ভয়েস ফর গ্লোবাল বাংলাদেশিজ’ সংগঠনের পক্ষ থেকে অধ্যাপক হাসনাত হোসাইন এমবিই এবং জাতির পক্ষ থেকে তার একটি প্রতিকৃতি ভাস্কর্য লন্ডনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস চত্বরে এবং ঢাকায় জাতীয় যাদুঘরে স্থাপনের জন্য সরকারের প্রতি আবেদন করছি। তাকে সম্মানিত করলে দেশকে সম্মানিত করা হবে। মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস রচনায় সহায়ক হবে।

তিনি বলেন, অর্থনীতি, পররাষ্ট্রনীতি, গণতন্ত্র, মানবাধিকার, দারিদ্র্য, উন্নয়নসহ নানা বিষয়ে তার বাংলা ও ইংরেজিতে দেশে-বিদেশে প্রকাশিত লেখা এবং স্মৃতি, গুণাবলী আমাদের জাতির ইতিহাসে আজীবন উজ্জ্বল হয়ে থাকবে।