সরকারি খরচে এবার হজে যাচ্ছেন ৪৫ জন

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির নয় সদস্যের প্রত্যেকের সুপারিশে পাঁচজন করে সরকারি খরচে হজে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। ফলে তাদের সুপারিশে ৪৫ জন সরকারি খরচে এবার হজে যাচ্ছেন। তবে সংশ্নিষ্টরা বলছেন, অন্য বছরের মতোই এবারও সরকারি খরচে হজে যাওয়া প্রতিনিধি দলে অপ্রাসঙ্গিক ব্যক্তিদের নাম রয়েছে। এসব বিষয়ে সমালোচনা ঠেকাতেই ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সব সদস্যকেই পাঁচজন করে পাঠানোর সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। যদিও কমিটির সভাপতি রুহুল আমীন মাদানী সমকালকে বলেছেন, প্রতিনিধি দলে অপ্রাসঙ্গিক ব্যক্তিদের নাম নিয়ে আলোচনার পরিকল্পনা তার ছিল। কিন্তু সময় পাওয়া যায়নি। অন্য বিষয়ে আলোচনা করতেই সময় শেষ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, এবারের হজ টিম নিয়ে এখন আর আলোচনা করেও লাভ নেই। কেননা প্রতিনিধি দলে যাদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, তাদের অনেকেই ইতিমধ্যে সৌদি আরবের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। আগামী বছর যাতে এ ধরনের ব্যক্তিরা প্রতিনিধি দলে ঢুকতে না পারে, সে ব্যাপারে কমিটি সোচ্চার থাকবে।

বৈঠকে জানানো হয়, ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির প্রত্যেক সদস্যের সুপারিশে পাঁচজন করে হাজি এবার সরকারি খরচে হজ করতে সৌদি আরব যাচ্ছেন। এবার হাজিদের হজে যাওয়ার বিষয়টি ইতিমধ্যে চূড়ান্ত হয়েছে। এর আগে ১০ জুন অনুষ্ঠিত সংসদীয় কমিটির দ্বিতীয় বৈঠকে প্রত্যেক সদস্যের প্রতিনিধি হিসেবে পাঁচজন হজে পাঠানোর সুপারিশ করা হয়। এর বাইরেও এবার হজে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সংসদীয় কমিটির তিন সদস্য প্রতিনিধি হিসেবে সরকারি খরচে হজে যাচ্ছেন। তারা হলেন- কমিটির সভাপতি মো. হাফেজ রুহুল আমীন মাদানী, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী ও রত্না আহমেদ।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির মোট নয়জন সদস্য রয়েছেন। তাদের মধ্যে অন্যরা হলেন- সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, শওকত হাচানুর রহমান (রিমন), মনোরঞ্জন শীল গোপাল, মো. ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ্‌, এইচএম ইব্রাহিম ও তাহমিনা বেগম। এ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী টেকনোক্র্যাট কোটায় হওয়ার কারণে তিনি সংসদীয় কমিটির সদস্য নন।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এ বছর সরকারি খরচে ৫৫ জন আলেমসহ ৩০৮ জন হজ পালনের সুযোগ পেয়েছেন। সংসদীয় কমিটির সদস্যদের সুপারিশ ছাড়াও সরকারি খরচে হজে গমনকারীদের মধ্যে রয়েছেন- সংসদ সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী, খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, সাংবাদিক, সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রমুখ।