রাজনীতি

গ্রামেগঞ্জে নির্বাচনী উৎসব শুরু হয়েছে: নাসিম

প্রকাশ: ০৯ নভেম্বর ২০১৮      

 সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম -ফাইল ছবি

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ সব রাজনৈতিক দল ও জোটকে নির্বাচনে অংশগ্রহণের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, তফসিল ঘোষণার পর গ্রামেগঞ্জে নির্বাচনী উৎসব শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে। নির্বাচনে জনগণ যাদের রায় দেবে, তারাই পরবর্তী সরকার গঠন করবেন। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল জনগণের রায় মেনে নেবে।

শুক্রবার সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন ১৪ দলের সমন্বয়ক ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নাসিম।

তিনি বলেন, আমেরিকার ট্রাম্প ক্ষমতায় থাকার পরও নির্বাচনে তার দল হেরে গেছে। মালয়েশিয়া ও ভারতেও ক্ষমতাসীন দলের অধীনে নির্বাচন হয়। বাংলাদেশেও সংবিধান অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হবে। নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতার পালাবদলের কোনো সুযোগ নেই। কোনো অপশক্তি দেশের উপর ভর করুক তা কারো কাম্য নয়।

তিনি এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, নির্বাচন চলাকালীন সময় সংসদ নিষ্ক্রীয় থাকবে। মন্ত্রীরা শুধু রুটিন কাজ করবেন। কোন প্রকল্প গ্রহণ, অনমোদন কিংবা বদলি-পদায়ন করা যাবে না।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নাটোর-১ আসনের এমপি আবুল কালাম আজাদ, কাজিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, পৌর মেয়র হাজী নিজাম উদ্দিন, দলের প্রচার সম্পাদক উজ্জল কুমার ভৌমিক, ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান মুকুল প্রমুখ।

অপর এক অনুষ্ঠানে নাসিম বলেন, আসন্ন নির্বাচনে শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দেবেন, তার পক্ষেই সবাইকে একজোট হয়ে স্বতস্ফূর্তভাবে কাজ করতে হবে। উন্নয়নের তথ্য জানিয়ে জনগণের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাইতে হবে। তাহলেই ইনশাআল্লাহ নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত।

বৃহস্পতিবার রাতে উত্তরবঙ্গ সফর শেষে রাজধানী ফেরার পথে সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন।

আরও পড়ুন

ছয় বছরে প্রাণহানি ২৪০ নিখোঁজ দুই শতাধিক

ছয় বছরে প্রাণহানি ২৪০ নিখোঁজ দুই শতাধিক

২০১২ সালের ১২ মার্চ থেকে চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ...

হাওরে পাখি নেই আগের মতো

হাওরে পাখি নেই আগের মতো

একসময় শীত এলেই পরিযায়ী পাখির কলরবে মুখর হতো নাসিরনগরের মেদীর ...

আসুন ওদের ভুলে যাই!

আসুন ওদের ভুলে যাই!

'কিছু কিছু মানুষ সত্যি খুব অসহায়। তাদের ভালোলাগা, মন্দলাগা, ব্যথা-বেদনাগুলো ...

ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলে দূরত্ব বাড়ছে

ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলে দূরত্ব বাড়ছে

একদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, অন্যদিকে ২০ দলীয় ঐক্যজোট। দুই জোটের নেতৃত্বেই ...

ঝিনুক নেই মোতিও নেই

ঝিনুক নেই মোতিও নেই

চলনবিলে আর ঝিনুক মেলে না। ঝিনুকের মোতিও মেলে না। রুদ্র ...

দিনাজপুরে প্রাণিখেকো উদ্ভিদ

দিনাজপুরে প্রাণিখেকো উদ্ভিদ

প্রাণীদের খেয়ে ফেলে- এমন উদ্ভিদের কথা রূপকথার গল্পে আছে, বাস্তবেও ...

মধ্যপ্রাচ্যে পাটপণ্য রফতানিতে ধস

মধ্যপ্রাচ্যে পাটপণ্য রফতানিতে ধস

কয়েক বছর বিশ্ববাজারে রমরমা ব্যবসার পর বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে ও ...

চট্টগ্রামে পাইকারি বাজারে অস্থিরতা

চট্টগ্রামে পাইকারি বাজারে অস্থিরতা

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে আমদানি করা চায়না রসুনের প্রতি কেজির ...