উপজেলা নির্বাচন

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা পদ হারাচ্ছেন

প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০১৯       প্রিন্ট সংস্করণ     

শাহেদ চৌধুরী

উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের শোকজ ও দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দিচ্ছে আওয়ামী লীগ। সেইসঙ্গে নৌকা প্রতীকের বিরোধী মন্ত্রী, এমপি ও নেতাদেরও শোকজ করার প্রস্তুতি রয়েছে।

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ সমকালকে জানিয়েছেন, বিদ্রোহী প্রার্থীদের শোকজ করা হবে। একই সঙ্গে তাদের দলীয় পদ থেকেও অব্যাহতি দেওয়া হবে। এ ছাড়া নৌকা প্রতীকের বিরোধিতাকারীদের শোকজ করা হবে। প্রায় একই মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এবং লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান।

আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা জানিয়েছেন, উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের তালিকা দলীয়ভাবে সংগ্রহ করা হলেও তাদের সমর্থনকারী এমপি, মন্ত্রী ও নেতাদের

তালিকা তৈরি হয়নি। এ নিয়ে দলের ভেতরে মতভেদ রয়েছে। দায়িত্বশীল নেতারা তালিকা তৈরির উদ্যোগ নিলেও শুরুতেই এ নিয়ে বিভ্রান্তি শুরু হয়। অনেকেই ওই তালিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

এ অবস্থায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বিদ্রোহী প্রার্থীদের পাশাপাশি নৌকা প্রতীকের বিরোধিতাকারী মন্ত্রী, এমপি ও নেতাদের নামের তালিকা তৈরির উদ্যোগ নেন। বর্তমানে ওই তালিকা প্রধানমন্ত্রীর হাতে রয়েছে। তিনি আগামী ১৯ জুলাই যুক্তরাজ্য সফরে যাচ্ছেন। ৫ আগস্ট তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। তিনি দেশে ফেরার পর এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ূয়া সমকালকে জানিয়েছেন, আগামী ২০ জুলাই সকাল ১১টায় প্রধানমন্ত্রীর ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠক ডাকার সম্ভাবনা রয়েছে। ওই বৈঠকে উপজেলা নির্বাচনে দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ও তাদের সমর্থনকারী নেতাদের বিষয়ে কোন প্রক্রিয়ায় সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, তা নিয়ে আলোচনার প্রস্তুতি রয়েছে।

আওয়ামী লীগের কয়েকজন শীর্ষ নেতা জানিয়েছেন, উল্লেখযোগ্য সংখ্যক উপজেলায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের বিপক্ষে কয়েকজন মন্ত্রী-এমপিসহ স্থানীয় নেতাদের অবস্থান নেওয়ার অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে। এ তালিকায় কমপক্ষে ১০০ জনের নাম রয়েছে। এরই মধ্যে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক শাস্তির সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে তাদের কারণ দর্শাতে বলা হবে।

দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে সংশ্নিষ্টদের কাছে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠাবেন। ওই নোটিশের জবাবের ভিত্তিতে সংশ্নিষ্টদের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে নোটিশ পাঠানোর সঙ্গে সঙ্গেই দলের পদ হারাবেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা। ওবায়দুল কাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বর্তমানে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন। আজ বুধবার তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের দৃষ্টিতে, বেশ কয়েকটি উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে মন্ত্রী, এমপিসহ দলের কয়েকজন স্থানীয় নেতার প্রকাশ্য বিরোধিতার কারণে প্রত্যাশিত ফল পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে দলের ভেতরে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা দলের নীতিনির্ধারক নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে কয়েকটি উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়া মন্ত্রী ও এমপিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। কেউ কেউ এ বিষয়ে দালিলিক প্রমাণ উপস্থাপন করেছেন। অনেকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রধানমন্ত্রীর ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে অভিযোগপত্রও জমা দেন।