প্রত্যন্ত অঞ্চলে এখনও ত্রাণ পৌঁছেনি: রিজভী

প্রকাশ: ২১ জুলাই ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

সারাদেশে বন্যার ভয়াবহতা তুলে ধরে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশের উত্তরাঞ্চল-মধ্যাঞ্চলে এখন বন্যায় সর্বস্বহারা মানুষের হাহাকার চলছে। আশ্রয় ও শুকনো খাবারের সন্ধানে ছুটছে বানভাসি মানুষ। কোথাও ত্রাণের গাড়ি কিংবা নৌকার সংবাদ শুনলেই ছুটে যাচ্ছেন তারা। ত্রাণের অভাবে যখন করুণ অবস্থা, তখন সরকারের মন্ত্রী-এমপিরা ঢাকায় বসে গলাবাজি করছেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে এখনও ত্রাণ পৌঁছেনি।

রোববার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। তিনি জানান, বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে আহ্বায়ক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, আইনের শাসন, সুশাসন, জবাবদিহিতার অভাব আর বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে দেশে দুর্নীতি ব্যাপক বিস্তারলাভ করেছে। সামাজিক মূল্যবোধ ধ্বংস করে সরকারের সর্বত্র লুটপাট-ঘুষ-দুর্নীতি বিরাজ করছে। দুর্নীতির বিরূপ প্রভাবে অগ্রগতি থমকে গেছে। ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে অবৈধভাবে অর্থ উপার্জন নিয়মে পরিণত হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদকের সমালোচনা করে তিনি বলেন, এ সংস্থার চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুর্নীতি করতে উৎসাহ দিয়ে বলছেন- 'সরল বিশ্বাসে দুর্নীতি করলে অপরাধ হবে না। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সরল বিশ্বাসে কৃতকর্ম কোনো অপরাধ নয়।' প্রশাসনের এই সরল বিশ্বাসী কর্মকর্তাদের কারণে দেশের ব্যাংকিং খাতে এখন চরম নৈরাজ্য চলছে।

ডেঙ্গু মহামারি আকার ধারণ করেছে অভিযোগ করে বিএনপির এ জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধে সরকারের কার্যকর কোনো উদ্যোগ নেই। আর এ মরণঘাতী ডেঙ্গু জ্বর ১৯৯৭ সালে আওয়ামী লীগই আমদানি করেছে। মশা নিধনে সিটি করপোরেশনের কোনো ভূমিকা নেই। সরকার শুধু কথার মধ্যে বিভিন্ন উদ্যোগের কথা বলছে; কিন্তু মানুষকে বাঁচানোর জন্য কোনো কিছু করছে না।

সংবাদ সম্মেলনে দলের ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।