ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধারের প্রত্যয় জয়-লেখকের

প্রকাশ: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯     আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

আল-নাহিয়ান খান জয় ও লেখক ভট্টাচার্য -ফাইল ছবি

ছাত্রলীগের হারানো ভাবমূর্তি ও ঐতিহ্য পুনরুদ্ধারের প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন সংগঠনের নবনিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এমন প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তারা। এ সময় সংগঠনটির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মহানগর উত্তর, দক্ষিণ শাখাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

নানা বিতর্কিত কর্মকাণ্ড ও নৈতিক স্খলনের অভিযোগে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে পদ থেকে সরিয়ে আল নাহিয়ান খানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং লেখক ভট্টাচার্যকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক করা হয়। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তারা আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব নেন।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের সামনে আল-নাহিয়ান খান জয় বলেন, শেখ হাসিনা আমাদের ছাত্রলীগের দায়িত্ব দেওয়ার পর আজ আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করলাম। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় আমরা তার সুযোগ্য কন্যার নির্দেশিত পথে চলব। তার হাতকে শক্তিশালী করতে কাজ করে যাব। ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি ও ঐতিহ্য পুনরুদ্ধারে আপ্রাণ চেষ্টা করে যাব। 

তিনি বলেন, ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটিতে কারও বিরুদ্ধে অনিয়মের কোনো অভিযোগ থাকলে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বঙ্গবন্ধুর ছাত্রলীগ কখনও আদর্শচ্যুত হতে পারে না।

জয় বলেন, ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশের কোনো ঘটনা যদি ঘটে থাকে, তাহলে গণমাধ্যম ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সদ্য বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে নির্বাচন করে ডাকসুর জিএস হয়েছেন। তিনি ওই পদে আর থাকতে পারবেন কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে জয় বলেন, ডাকসু এবং ছাত্রলীগ সম্পূর্ণ আলাদা দুটি বিষয়। তিনি ডাকসুর জিএস থাকবেন কিনা সেটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নির্ধারণ করবে।

লেখক ভট্টাচার্য বলেন, সারা দেশে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা যেকোনো অভিযোগ কিংবা দাবি আমাদের জানাতে পারবেন। আমাদের কাছে আসতে কোনো লবিং কিংবা মধ্যস্থতা লাগবে না।

এ সময় সংগঠনকে শক্তিশালী করতে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।