গণমাধ্যমে ভুল বার্তা দেওয়া হয়েছে: মেনন

প্রকাশ: ২০ অক্টোবর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ফাইল ছবি

১১তম জাতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি বলে যে মন্তব্য করেছিলেন তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

তিনি বলেন, 'বরিশাল জেলা পার্টির সম্মেলনে আমার একটি বক্তব্য সম্পর্কে জাতীয় রাজনীতি ও ১৪ দলের রাজনীতিতে একটা ভুল বার্তা গেছে। আমার বক্তব্য সম্পূর্ণ পরিবেশন না করে অংশবিশেষ পরিবেশন করায় এই বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। গণমাধ্যমে ভুল বার্তা দেওয়া হয়েছে।'

রোববার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা কামরুল আহসান স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে মেনন এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, 'আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, এ যাবৎকালের নির্বাচন ১৪ দলের সংগ্রামেরই ফসলে এবং সরকারও গঠিত হয়েছে ১৪ দলের লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে। আজকে মৌলবাদ-সাম্প্রদায়িকতার যে বিপদ বিদ্যমান, তাকে মোকাবিলা করতে ১৪ দলের ওই সংগ্রামকেই এগিয়ে নিতে হবে।'

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি বলেন, 'আমি কেবল এখনই নয়, জাতীয় নির্বাচন সম্পর্কে আমি পার্লামেন্টে রাষ্ট্রপতি ভাষণের ওপর বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেছিলাম ‘একাদশ সংসদের সফল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু অভিজ্ঞতাটি সুখকর নয়। বিএনপি-জামায়াত নির্বাচনে এলেও নির্বাচনকে ভণ্ডুল করা, নিদেনপক্ষে জাতীয়-আন্তর্জাতিকভাবে প্রশ্নবিদ্ধ করার কৌশল প্রয়োগ করেছে নির্বাচনে। এটা যেমন সত্য, তেমনি এ ধরনের পরিস্থিতিতে অতি উৎসাহী প্রশাসনিক কর্মকর্তারা বাড়াবাড়ি করতে পারে। কিন্তু তাতে এই নির্বাচন অশুদ্ধ বা অবৈধ হয়ে যায় না।'

এর আগে শনিবার বরিশাল নগরীর অশ্বিনী কুমার হলে ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেনন বলেন, 'গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমিও নির্বাচিত হয়েছি। তারপরও সাক্ষ্য দিচ্ছি- ওই নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি। এমনকি পরবর্তীকালে উপজেলা এবং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও ভোট দিতে পারেনি দেশের মানুষ।'

তিনি বলেন, 'দেশে উন্নয়নের পাশাপাশি দুর্নীতি মহামারির মতো ছড়িয়ে পড়েছে। সরকার একদিকে উন্নয়ন করছে, অন্যদিকে সরকারদলীয় লোকজন দুর্নীতির মাধ্যমে হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট করছে। দুর্নীতি ও লুটপাটের কারণে ধামাচাপা পড়ছে সরকারের উন্নয়ন। সাধারণ মানুষ সুফল পাচ্ছে না এ উন্নয়নের।'