প্রধানমন্ত্রীর ওপর হামলাকারীও যোগ দিয়েছেন আ'লীগে

খুলনা বরিশাল রংপুরে যোগ দেওয়া নেতাকর্মীদের তালিকায় বিস্ময়কর তথ্য

প্রকাশ: ০৩ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ০৩ নভেম্বর ২০১৯       প্রিন্ট সংস্করণ     

শাহেদ চৌধুরী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর হামলাকারীও যোগ দিয়েছেন আওয়ামী লীগে। এমনকি সমাজবিরোধী দাগি আসামিরাও রয়েছেন আওয়ামী লীগে যোগদানকারীর তালিকায়। জামায়াত-শিবির ও ফ্রিডম পার্টির সক্রিয় কর্মীরাও আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে তৃণমূল পর্যায়ের শীর্ষ নেতা হয়ে গেছেন।

২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া খুলনা, বরিশাল ও রংপুর বিভাগের নেতাকর্মীদের তালিকায় এমন বিস্ময়কর তথ্য পাওয়া গেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে এ তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তালিকাটি দলের চার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও আট সাংগঠনিক সম্পাদকের কাছে দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ সমকালকে জানিয়েছেন, ওই তালিকায় আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া নেতাকর্মীদের নাম ও তাদের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য রয়েছে। তালিকাটি জেলা নেতাদের কাছে পাঠানো হবে। তারা ওই তালিকায় থাকা বিতর্কিতদের দল থেকে বাদ দেবেন।

বেশ কয়েকজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক সমকালকে জানিয়েছেন, তালিকার মাধ্যমে আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া নেতাকর্মীরা আগে কোন দলের সঙ্গে জড়িত ছিলেন, তা সংগ্রহ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে আগের দলে তাদের পদ-পদবি, তাদের দাদা, নানা, বাবা, চাচা, ফুফু, মামাসহ পরিবারের সদস্যদের রাজনৈতিক তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে।

তাদের মুক্তিযুদ্ধকালীন ভূমিকার তথ্যও রয়েছে ওই তালিকায়। সেইসঙ্গে আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়ার পর সংশ্নিষ্ট নেতাকর্মীর পদ-পদবি ও দলীয় কার্যক্রমে তার সম্পৃক্ততার তথ্যও সংগ্রহ করা হয়েছে। রয়েছে মামলা-সংক্রান্ত তথ্যাবলিও। ওই রিপোর্টে বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া বরিশাল বিভাগের ভোলার দক্ষিণ আইচার  ইসমাইল ফকিরের বিরুদ্ধে ১৯৯০ সালের উপনির্বাচনে আইচা বাজার এলাকায় ফেরির ওপরে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার গাড়িতে হামলা ও কাদা নিক্ষেপের কথা বলা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ভূমিদস্যুতার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগও রয়েছে ওই রিপোর্টে।

আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া নেতাকর্মীদের মধ্যে বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জের বিএনপির সাইফুল ইসলাম, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার জাকির হোসেন নিজাম, মীর তারেক ও ভোলার মনপুরার মোহাম্মদ রিয়াজের পরিবারে জামায়াত-শিবিরের সমর্থক রয়েছে। এই চার নেতা বিএনপি থেকে যোগ দিয়েছেন। ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার মামুন হাওলাদার জামায়াতে ইসলামী করতেন।

বিএনপি থেকে আসা পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার আবুল হোসেন লাভলুর দাদা এবং নজরুল ইসলাম ফারুকের বাবা স্বাধীনতাবিরোধী ছিলেন। ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার এইচ এম আখতারুজ্জামান বাচ্চু প্রথমে ছাত্রশিবিরের উপজেলা সভাপতি এবং পরে ফ্রিডম পার্টির উপজেলা সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। আর এখন তিনি আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতা।

তাদের মতো আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন ভোলার শশীভূষণ উপজেলার জামায়াতকর্মী ওমর ফারুক, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলা জামায়াতের সক্রিয় সদস্য সরোয়ার শরীফ, নজরুল ইসলাম ও বরগুনার তালতলী উপজেলার আবদুর রাজ্জাক হাওলাদার। এর মধ্যে আবদুর রাজ্জাক হাওলাদার তালতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

এ ছাড়া বেশ কয়েকজন দাগি আসামি আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে নিজেদের বাঁচানোর চেষ্টা করেছেন। তাদের মধ্য রয়েছেন- বরিশালের গৌরনদীর লোকমান হোসেন খান, হিজলার মোহাম্মদ রেজাউল, পটুয়াখালীর কলাপাড়ার গাজী আব্বাস উদ্দিন বাচ্চু, ভোলার বোরহানউদ্দিনের মোহাম্মদ সোলায়মান, রেদোয়ান চৌধুরী নয়ন, মোহাম্মদ কবির, তজুমদ্দিনের ছলিম পাটোয়ারী, লালমোহনের ইমাম কমিশনার, জাকির হোসেন, আবুল বাশার সেলিম, চরফ্যাসনের মনির উদ্দিন, দক্ষিণ আইচার আবদুল মান্নান, মনির হোসেন হাওলাদার ও বেল্লাল হাওলাদার। তারা আগে বিএনপি, ছাত্রদল ও যুবদলের রাজনীতি করতেন।

বিএনপিসহ অন্য দল থেকে যোগ দিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাও হয়েছেন অনেকে। পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীর কামাল সিকদার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হয়েছেন। নুরুল আমিন মেম্বার স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন। রাঙ্গাবালী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হয়েছেন জাকির গাজী। ভোলার লালমোহন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হয়েছেন ইমাম কমিশনার।

নূরে আলম মাস্টার চরফ্যাসনের আসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হয়েছেন। চরফ্যাসন উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি হয়েছেন জাহাঙ্গীর হোসেন নিয়াজি। চরফ্যাসন উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন মফিজ পাটোয়ারী। ভোলার শশীভূষণের ইউনুস মিয়া রসুলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন। রসুলপুর ইউনিয়ন ওলামা লীগের সভাপতি হয়েছেন জামায়াতের ওমর ফারুক। রসুলপুর ৫ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি হয়েছেন আবুল কাসেম।

এ ছাড়া মোহাম্মদ আলী জাহানপুর ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সলেমান পাটোয়ারী জাহানপুর ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি, জাকির হোসেন হাওলাদার দক্ষিণ আইচার অধ্যক্ষ নজরুলনগর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি, জামায়াতের সরোয়ার শরীফ, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার ধানীসাফা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক, রাসেল মুন্সি বরিশাল সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং মিজান পঞ্চায়েত দক্ষিণ আইচার অধ্যক্ষ নজরুলনগর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন।

খুলনার মেহেরপুরের আনোয়ারুল ইসলাম বাবু জামায়াতের সমর্থক। এখন গাংনী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তার বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। এই জেলার মুজিবনগর উপজেলার জামায়াতকর্মী মোহাম্মদ মুকুল আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে জেলা পরিষদের কাউন্সিলরও হয়েছেন। আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে মোনাখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হয়েছেন জামায়াতকর্মী মফিজুর রহমান। মেহেরপুরের জাকির হোসেন মোল্লা বিএনপি ছেড়ে আওয়ামী লীগে এসে গাংনী পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি হয়েছেন। মুজিবনগর সরকারি ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন তুষার ইমরান।

এ ছাড়া জামায়াত-শিবির ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগদানকারীদের তালিকায় রয়েছেন- মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার ওয়ালী উল্লাহ সোহাগ, খুলনার পাইকগাছার সেলিম জাহাঙ্গীর, ইদ্রিসুর রহমান মন্টু, এসএম আলতাপ হোসেন, কয়রার নুরুল হক মোল্যা, সিদ্দিক মোল্যা, হাবিবুল্যাহ মোল্যা, নজরুল সানা, মহিবুল্যাহ, হাবিবুল্যা সানা, ওয়ালী উল্লাহ, রফিকুল বৈদ্য, খলিলুর রহমান, নুরজাহান বেগম, মন্তাজ আলী, শফিকুল মিস্ত্রী, ইউনুছ আলী, জহুরুল ইসলাম, আবদুল মান্নান, হাবিবুল্যাহ, লুৎফর রহমান, আবুল বাশার, বাসার গাজী, রোকন গাজী, মোহাম্মদ মোস্তফা, বারিক সানা, মনিরুল সানা, বাক্কার সানা, হাবিবুল্লাহ, সাউচ সানা, মিজানুর সানা, আবুল সানা, রবিউল সরদার, আইয়ুব সরদার ও মোহাম্মদ ছলেমান।

খুলনার পাইকগাছার সেলিম জাহাঙ্গীর ছাত্রশিবির সমর্থক। তার মা স্থানীয় জামায়াতের রোকন। তিনি আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে পাইকগাছা পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। মামলায় জড়ানোর পর আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া নেতাকর্মীদের মধ্যে রয়েছেন খুলনার বটিয়াঘাটার ইসমাইল হোসেন বাবু, মেহেরপুরের গাংনীর শাসছের আলী, মোহাম্মদ মোমিন, খুলনা মহানগরের লবণচরার কামাল হোসেন, খালিশপুরের শেখ দাউদ আলী, নজরুল ইসলাম ও পাইকগাছার ইদ্রিসুর রহমান মন্টু।

এ ছাড়া খুলনা, বরিশাল ও রংপুর বিভাগে বিএনপি, জামায়াত, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন দল থেকে অসংখ্য নেতাকর্মী আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন।

তাদের মধ্যে রয়েছেন- খুলনার রূপসার আকতার খান, কায়েম কোরাইসী, মোহাম্মদ মাগদুম, মোহাম্মদ আরাফাত, স্কেল লস্কার, আমীনুল ইসলাম সাগর, ওয়াহিদ মোড়ল, সৈয়দ মাসুম বিল্লাহ, বটিয়াঘাটার মোল্লা ইসমাইল হোসেন বাবু, মনিরুজ্জামান জামাল মেম্বার, মোফাজ্জেল শেখ, রহমত মীর, আবদুল হালিম, কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার আনোয়ার হোসেন খান, রতন আলী, ছমির আলী, আবদুল খালেক, তমজের শেখ, আনিচুর রহমান, আক্কেত মণ্ডল, শাইন মণ্ডল, শাহজাহান মণ্ডল, লালন বিশ্বাস, মিরপুরের মোহাম্মদ খোকন, আবদুল মান্নান, কবির হোসেন, মোজাম্মেল হক, সুরুজ আলী, মোহাম্মদ সুমন, রিয়াজ প্রামাণিক, দৌলতপুরের আরিফুল ইসলাম, ইসমাইল হোসেন, আদর মেম্বার, তফিকুল ইসলাম তপন মেম্বার, নজরুল ইসলাম, হেকমত আলী, আবদুল লতিফ, আজিজুল হক, ইসরাফিল মেম্বার, মোহাম্মদ নজিবুল, মোহাম্মদ ইছাহক আলী, মোহাম্মদ সজিবুল, মোহাম্মদ সাইদুর, মোহাম্মদ আসাদুল, মোহাম্মদ সাজাহান, তককেল মালিথা, ভাদু শেখ, আনারুল ইসলাম, মোহাম্মদ বাপিপ, মোহাম্মদ ভাষান, মোহাম্মদ রহমান, মোহাম্মদ রতন, মোহাম্মদ রাজু, মেহেরপুরের গাংনীর আনোয়ারুল ইসলাম বাবু, জাকির হোসেন মোল্লা, শামছের আলী, মোহাম্মদ মোমিন, মেহেরপুর সদরের মনিরুল ইসলাম কাটু, ইলিয়াস হোসেন, শওকত হোসেন, মোহাম্মদ রাশেদ, হাফিজুল ইসলাম, আজাহারুল ইসলাম, মোহাম্মদ গয়াল, সাবর আলী, মোহাম্মদ জাবিরুল, আইনাল হক, মোহাম্মদ জয়নাল, মোহাম্মদ আকাশ, সহিদুল ইসলাম, মোহাম্মদ মোশারফ, মোহাম্মদ জুয়েল, মোহাম্মদ মুস্তাকিম, মোহাম্মদ আবু, মোহাম্মদ মিলন, মোহাম্মদ এলাহী, মোহাম্মদ বকুল, মোহাম্মদ মুকুল, মোহাম্মদ আখের, মোহাম্মদ বাবু, মোহাম্মদ মজনু, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, মোহাম্মদ রমজান, মোহাম্মদ সিরাজ, মোহাম্মদ ফিরাজুল, মোহাম্মদ মহিবুল, মোহাম্মদ ধুলু, মোহাম্মদ মাহাবুল, বাবলু মোল্লা, মোহাম্মদ ডাবলু, মোহাম্মদ শাহিনুল, মোহাম্মদ খালেক, মুজিবনগরের তুষার ইমরান, শাহ ওয়ালীউল্লাহ সোহাগ, মোহাম্মদ মুকুল, রাজু আহম্মেদ, মফিজুর রহমান, আরশাদ আলী, খুলনা সদরের শেখ আবদুল গফফার, হরিণটানার আবদুল গফুর মোল্লা, লবণচরার কামাল হোসেন, শহিদুল ইসলাম, আবদুল বারেক, খালিশপুরের শেখ দাউদ আলী, হাসান শেখ, রুবেল শেখ, নজরুল ইসলাম, মোহাম্মদ মিন্টু, পাইকগাছার সেলিম জাহাঙ্গীর, ইদ্রিসুর রহমান মন্টু, এস এম আলতাপ হোসেন, কয়রার নূরুল হক মোল্যা, সিদ্দিক মোল্যা, হাবিবুল্লাহ মোল্যা, নজরুল সানা, মহিবুল্যাহ, হাবিবুল্যা সানা, ওয়ালী উল্লাহ, রফিকুল বৈদ্য, খলিলুর রহমান, নূরজাহান বেগম, মন্তাজ আলী, শফিকুল মিস্ত্রী, ইউনুছ আলী, জহুরুল ইসলাম, আবদুল মন্নান, মোহাম্মদ হাবিবুল্যাহ, লুৎফর রহমান, আবুল বাশার, মোহাম্মদ সিরাজুল, শহিদুল শেখ, মোহাম্মদ জুলফিকুর, মোহাম্মদ আজিজুল, মোহাম্মদ জাকিরুল, মোহাম্মদ তরিকুল, মোহাম্মদ রহিম, মোহাম্মদ জুলফিকার, ইউনুছ আলী, কামরুল ঢালী, টুকু গাজী, মোহাম্মদ মোস্তফা, মোহাম্মদ রেজাউল, নূর ইসলাম, নূর বক্স গাজী, শাহাজান ঢালী, শাহিন ঢালী, মোহাম্মদ গোলজার, আনিচ ঢালী, লিটন ঢালী, মোহাম্মদ শাহাদাত, ময়নুদ্দীন ঢালী, মোহাম্মদ মোশাররফ, মোহাম্মদ ছিদ্দিক, শফিকুল ইসলাম, শফিকুল সরদার, মোহাম্মদ আব্দুল্যাহ, নূরুল আমিন, মোহাম্মদ জিয়ারুল, ইউনুচ আলী ও রমজান আলী।

বরিশাল বিভাগ:  বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জের রশিদ রাঢ়ী, দুলাল রাঢ়ী, সাইফুল রাঢ়ী, রহিম খান, রুবেল তালুকদার, মাসুম জোমাদ্দার, শাহ আলম হাওলাদার, বাবুল জোমাদ্দার, সুমন তালুকদার, বাবুল মাতুব্বর, খোকন চন্দ্র দাস, তুহিন খান, বাতেন হাওলাদার, আবদুস সাত্তার, শহিদুল ইসলাম, আবুল হোসেন, শুকুর বেপারী, কালু বেপারী, নিজাম হাওলাদার, জলিল চৌকিদার, মিন্টু হাওলাদার, শহিদুল ইসলাম, রিয়াজ উদ্দিন, ধলু বেপারী, জামাল হোসেন, আবুল বেপারী, মোক্তার সরদার, আখর রাঢ়ী, আলতাফ হোসেন রাঢ়ী, মাসুদ হাওলাদার, শাহাবালী মুন্সি, আলতাফ হোসেন রাঢ়ী, হাসান জোমাদ্দার, অহিদ চৌকিদার, সাইফুল ইসলাম বেপারী, রফিক রাঢ়ী, শহিদ রাঢ়ী, মোহাম্মদ জাকির, নুরু নবী, মাসুদ রাঢ়ী, মোহাম্মদ আরিফ, সুজিত দাস, সঞ্জিব দাস, বিপ্লব দাস, অমল বেপারী, কৃষ্ণ বাড়ৈ, উজ্জ্বল দাস, দিলীপ নাথ, সুজন, তপন মৃধা, আবদুল আল নোমান তালুকদার, কামাল কবিরাজ, ইব্রাহিম ফকির, আমিনুল ইসলাম টিপু, কামাল ঘরামী, মাইদুল মোল্লা, জহির কবিরাজ, কাওছার কবিরাজ, কামাল বকসী, শাহিন হাওলাদার, জুয়েল বকসী, নিজাম উদ্দিন বেপারী, বাহার উদ্দিন সিকদার, জসিম হাওলাদার, ফজলু রাঢ়ী, গিয়াস উদ্দিন বকসী, সাইফুল হাওলাদার, কামাল বেপারী, রুহুল আমিন বকসী, রিমন মৌলভী, রিয়াজ সিকদার, আমিনুল সিকদার, আমির রাঢ়ী, আলী বকসী, সজিব হাং, সুলতান মাহামুদ, নাসির বকসি, রুবেল রাঢ়ী, সেকুল রাঢ়ী, সাইফুল ইসলাম, মিল্লাত হোসেন, আসাদ রাঢ়ী, রিনি বকসী, রিয়াজ হোসেন বকসী, জামাল বকসী, মোহাম্মদ আলী, সাহিদ হাসান রাঢ়ী, সুমন মোল্লা, আবুল সরদার, আলম বকসী, শওকত জোমাদ্দার, সফিজল বকসী, শাহ আলম পালোয়ান, হযরত পালোয়ান, হাসান বকসী, মোসলেম মৌলভী, শফিক জোমাদ্দার, বারেক রাঢ়ী, খোকন রাঢ়ী, মন্নান মোল্লা, লিটন রাঢ়ী, শাহজাহান রাঢ়ী, মিল্লাত হোসেন, বাবুল বয়াতী, আবুল খান, জাফর বাছাড়, আবদুর রহিম বেপারী, নুরুল আমিন বাচ্চু, ইব্রাহিম সিকদার, সহিদ বেপারী, আবুল হোসেন রাঢ়ী, খোরশেদ দেওয়ান, হারুন হাফেজ, সাইফুল ইসলাম, বেল্লাল রাঢ়ী, অলিউদ্দিন দেওয়ান, মাসুদ ঢালী, বাবুল খাঁ, সহিদ চৌকিদার, কামাল গাজী, আবদুল খালেক, সালাউদ্দিন, আজিম চাপরাশি, মতলেব চাপরাশি, খোকন বেপারী, নুরুল ইসলাম গাজী, বাবুল বেপারী, ওমর আলী, ইব্রাহিম বেপারী, মনির হোসেন রাঢ়ী, মোহাম্মদ সুমন, আজিজল হক, মাহেব মুন্সি, মনির হোসেন হাওলাদার, হাসান আলী আকন,মনির হোসেন রাঢ়ী, জয়নাল আবেদীন, আব্বাস জোমাদ্দার, মাইদুল ইসলাম, দুলাল বাঘা, হাসেম সিকদার, মাসুদ আকন, এসাহাক সিকদার, মামুন হোসেন, খালেক বিশ্বাস, কামাল মুন্সি, জামাল মুন্সি, বাবুল মুন্সি, সোহেল মুন্সি, মোহাম্মদ আলী ঢালী, হেলাল শেখ, দুলাল ঢালী, মজিবর ফকির, আজিজ গোলদার, আলম গোলদার, শাজাহান গোলদার, ইদ্রিস গোলদার, জহির গোলদার, রাকিব রাঢ়ী, হান্নান গোলদার, বজলুর রহমান গোলদার, আলমগীর গোলদার, বিল্লাল গোলদার, ফারুক গোলদার, রত্তন গোলদার, রাসেল গোলদার, সোহেল গোলদার, মোহাম্মদ আলী মৃধা, জসিম রাঢ়ী, তানভির হাসান, হিমেল বেপারী, জাবেল মাহামুদ, মোহাম্মদ রেজাউল, ইউনুছ বিশ্বাস, মোহাম্মদ মিরাজ, মোহাম্মদ সোহেল, মোহাম্মদ সজিব, মোহাম্মদ মিঠু, সিরাজ হাওলাদার, সেলিম রাঢ়ী, সজিব হাওলাদার, সোহেল রাঢ়ী, মোসলেম বেপারী, মাসুদ বেপারী, লতিফ সিকদার, আলমগীর বেপারী, সাত্তার খান, মোহাম্মদ সফিক, তাহের মোল্লা, মোক্তার হোসেন খান, আবদুল আজিজ আকন, জাফর বেপারী, সোহেল সিকদার, কাজীরহাটের নাসির উদ্দিন খোকন, হিজলার নোমান মোল্লা, পারভেজ সরদার, মোহাম্মদ রেজাউল, রফিক প্যাদা, কাঞ্চন বেপারী, আনিছুর রহমান সিকদার, শহিদ খান, বাবুগঞ্জের আবুল হোসেন বাবুল বিশ্বাস, উজিরপুরের কামাল মুন্সি, কামাল হোসেন মোল্লা, ইউসুফ হাওলাদার, আনোয়ার হোসেন রাঢ়ী, চুন্নু রাঢ়ী, জাকির সিকদার, জামাল সরদার, সোহেল খান, গৌরনদীর লোকমান হোসেন খান, পটুয়াখালীর মতিউর রহমান হাওলাদার, বেল্লাল ফরাজী, খলিলুর রহমান, নুরুল হক মৃধা, কবির মৃধা, আবদুল হাকিম মাস্টার, রাজু ভুঁইয়া, আবদুল মজিদ হাওলাদার, সিদ্দিকুর রহমান, গলাচিপার মোহিবুল্লাহ, গিয়াস উদ্দিন এলাহী, রুহুল আমিন ভুঁইয়া, সাইমুর রহমান এলিট, ইসমাইল মিয়া, কলাপাড়ার আবদুল মান্নান খান, মকবুল দফাদার, গাজী আব্বাস উদ্দিন বাচ্চু, রাঙ্গাবালীর তারেক হাওলাদার, সোহেল মীর, আবু হাসনাত আবদুল্লাহ, নুরুল আমিন মেম্বার, কামাল সিকদার, হানিফ খান, জাকির গাজী, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার আবুল হোসেন লাবলু, নজরুল ইসলাম ফারুক, জাকির হোসেন নিজাম, সরোয়ার শরীফ, মোহাম্মদ মিজান, মীর তারেক, রাজু জমাদ্দার, নজরুল ইসলাম, মজিবর রহমান মোল্লা, মোহাম্মদ সুলতান, বরগুনার তালতলীর আলম কবির, আবদুর রাজ্জাক হাওলাদার, বামনার আজমল খান, জাকির হোসেন চৌধুরী, মোস্তফা কামাল, গোলাম মোস্তফা বাবুল সিকদার, গোলাম মাওলা হানিফ, তাসলিমা বেগম, খাদিজা বেগম, আবদুস শুক্কুর জোমাদ্দার, ঝালকাঠির এ কে এম জাকির হোসেন, শাহ আলম মীর বহর, কামাল হোসেন মৃধা, মাসুম হাওলদার, জাকির হোসেন তালুকদার, নলছিটির এইচ এম আখতারুজ্জামান বাচ্চু, এনামুল হক শাহিন, মিজান খলিফা, আল আমিন হাওলাদার, এম এ নান্না মিয়া, মাহাবুব আলম আকন, আনোয়ার হোসেন, মামুন হাওলদার, বশির হাওলাদার, আবদুল জলিল হাওলাদার, বরিশাল মহানগরের কাউনিয়ার তৌহিদুল ইসলাম বাদশা, কাওছার বিশ্বাস, আওলাদ মোল্লা, রাসেল মুন্সি, ইব্রাহিম হাওলদার, নাসির উদ্দিন হাওলাদার, ভোলার বোরহানউদ্দিনের আসাদুজ্জামান বাবুল অ্যাডভোকেট, সোলায়মান মেম্বার, নুরুল আমিন, রহমত মেম্বার, জাকির মেম্বার, হাসান মেম্বার, বশির মেম্বার, রেদোয়ান চৌধুরী নয়ন, কবির কমিশনার, আনোয়ার মেম্বার, আবদুল বারেক কবিরাজ, সরোয়ার হাওলাদার, নাসির উদ্দিন, রিয়াজ উদ্দিন শাহিন, তজুমদ্দিনের ছলিম পাটোয়ারী, মোকছেদ পাটোয়ারী, সফিক পাটোয়ারী, গিয়াস পাটোয়ারী, মোজাম্মেল হোসেন, মোহাম্মদ মিজান, মোহাম্মদ মোফাজ্জেল, ইউনসু হাজি, লালমোহনের ইমাম কমিশনার, মিজান হাওলাদার, কামাল কসাই, জাকির হোসেন, হাসেম মাস্টার, আলমগীর কসাই, হারুন অর রশিদ, লাভু পঞ্চায়েত, সাবিনা ইয়াসমিন, আবুল বাশার সেলিম, হাসানুজ্জামান সোহাগ, আসাদুল ইসলাম সুজন, চরফ্যাসনের মনির উদ্দিন, ওবায়দুল হক রতন, নুরে আলম মাস্টার, আশ্রাফুল আলম ফোটন, ইকবাল হোসেন লিখন, মফিজ পাটোয়ারী, এমরান সিকদার, জাহাঙ্গীর হোসেন নিয়াজি, সফিউল্লাহ পলোবান, শশীভূষণের ইউনুস মিয়া, আজাহার মেম্বার, কামাল মাস্টার, মোহাম্মদ মুজাম্মেল, মুজাম্মেল মেম্বার, দুলাল মিলিটারি, ওমর ফারুক, হাসান মিন্টু, আবুল কাসেম, আলতাফ হোসেন মীর, আওলাদ হোসেন, আবদুস সালাম, সিডু মাঝি, মোহাম্মদ হান্নান, মনির হোসেন, আমিরুল ইসলাম, প্রভাষক মনির, মোহাম্মদ. আলী, ফারুক বাঘা, হাফেজ মেম্বার, সলেমান পাটোয়ারী, কালাম মেম্বার, আবদুর রব হাজি, দক্ষিণ আইচার আবদুল মন্নান, ইসমাইল ফকির, মনির হোসেন হাওলাদার, কালাম কসাই, হেলাল তালুকদার, বেল্লাল হাওলাদার, আবুল কাসেম, আবদুস সহিদ, সফিকুল ইসলাম, আবদুল মালেক, খোকন মজুমদার, বাবুল ফকির, মনজুর আলম, কালাম চৌকিদার, বশার ফকির, মোহাম্মদ. মনির, মোহাম্মদ জাফর, মোহাম্মদ আকবর, সত্তার মোল্লা, মোহাম্মদ হোসেন, মোহাম্মদ রেজাউল, মোহাম্মদ সোহাগ, বেল্লাল মোল্লা, ফিরোজ আলম স্বপন পঞ্চায়েত, মিজান পঞ্চায়েত, জাকির হোসেন হাওলাদার, তোফায়েল আহমেদ, মোশারেফ হাওলাদার, মনপুরার আলাউদ্দিন হাওলাদার, মনির হাওলাদার, মোশারফ হোসেন তপু, সাইফুল পাটোয়ারী, ইউছুব পাটোয়ারী, সৈকত হোসেন, মোহাম্মদ রিয়াজ, মোহাম্মদ অলিউল্ল্যা, আবদুল মোমিন, আমিন মেম্বার, আব্বাস মাঝী, আবুল কালাম, মোহাম্মদ মনির, আবদুল আজিজ, মোহাম্মদ কালাম, মোহাম্মদ মোশারফ, মোহাম্মদ সোহেল, মোহাম্মদ রিপন, মোহাম্মদ স্বপন, মোহাম্মদ আমজাদ, মোহাম্মদ সামসুদ্দিন, সাহাবুদ্দিন মাস্টার, আবদুর সাত্তার, ইলিয়াস চৌধুরী, ইয়াকুব আলী চৌধুরী, হুমায়ুন কবির, মফিজুল ইসলাম, মোহাম্মদ বাহার, মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, লোকমান বেপারী, মোহাম্মদ শাহাজাহান, ওজিউল্ল্যা সরদার, মোহাম্মদ আজাদ, মোহাম্মদ কামাল, মোহাম্মদ আলী সহিদ, মোহাম্মদ জাফর, মোহাম্মদ ফারুক, আবদুল বাসেদ, রাসেল হাওলাদার ও মোহাম্মদ আব্বাস।

রংপুর বিভাগ:  রংপুরের পীরগাছার শাহ মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন, আব্দুর রউফ, মোহাম্মদ সমতুল্লাহ, আব্দুর রহিম, আবদার হোসেন, শাহ মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, আবদুল আউয়াল মেকার, সোলেমান আলী, দুলাল মেম্বার, কেরামত আলী, আবদুল হাই, আবদুর রহিম, আবুল কালাম আজাদ, কল্পনা বেগম, আল-আমিন, হারুন মিয়া, রাজা মিয়া, মাওলানা আবু বক্কর সিদ্দিক, মোফাজ্জল হোসেন ভুট্টু, আয়শা বেগম, শরিফুল ইসলাম মুকুল, জুলেখা বেওয়া, দিনাজপুরের বিরলের মজিবর রহমান, আমিনুল ইসলাম মাস্টর, জিল্লুর রহমান, মহসীন আলী, শামসুল হক সামু, পার্বতীপুরের মোহাম্মদ হুমায়ুন, দুলাল প্রামাণিক, বকুল মণ্ডল, নুর ইসলাম, হাবিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম, মেহেরুল ইসলাম, মহসিন আলী রয়েল, আইয়ুব আলী, আকবর আলী, ইকবাল হোসেন, মানিক মাস্টার, আকতার মণ্ডল, মোহাম্মদ মোখলেছুর, আতাউর রহমান, আবদুর রহমান, তহুবার রহমান, মালেক সরদার, কাজী সিরাজুল ইসলাম, বাবলু সরদার, বীরগঞ্জের আমিনুল ইসলাম, আবদুল খালেক, আবদুর রাজ্জাক, খানসামার শহিদুজ্জামান শাহ, নুর ইসলাম, নুর ইসলাম, আহেদা বেগম, দলিল উদ্দিন, মীর সিদ্দিক আলী, আব্দুল মজিদ, মোকছেদুল হক, রশিদুল ইসলাম শাহ, মোরশেদুল হক, হাসান আলী, জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, কাছুম উদ্দিন, নুরল হক, মেরিনা বেগম, মালেকা খাতুন, আলতাব হোসেন, আবদুস ছালাম, আবদুস সাত্তার, জহরুল হক, বেবী বেগম, জহুরুল হক, কাহারোলের খোরশেদ আলম, আবুল কাশেম মণ্ডল, নজরুল ইসলাম, মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, কাশেম আলী, মোহাম্মদ রাসেল, সুরত আলী, মোহাম্মদ আতিকুল, মোহাম্মদ রশিদুল, মোহাম্মদ আজিজুল, তরিকুল ইসলাম, আজিজ মিয়া, আকরাম হোসেন, আবদুল মালেক, হাচেন আলী, ফরহাদ হাসান চৌধুরী ইগলু, খায়রুল আলম বাদশা, নুর আলম, খাদেমুন নবী চৌধুরী বাদল, রবিউল ইসলাম চৌধুরী, মাসুদ জাহাঙ্গীর, আমিরুল ইসলাম চৌধুরী, মাহাবুব রহমান খান, মোজাফফর আহম্মেদ মানু, জাহাঙ্গীর আলম লিটন, রফিক মোল্লা, মিজানুর রহমান মিজান, মোকছেদ আলী, নুর আলম মিঠু, ওহেদুর রহমান ডাব্লু, হবিবর রহমান হবি, মঞ্জুর আলম, আসাদুজ্জামান আসাদ, নুরু উদ্দিন, রিয়াজুল ইসলাম, দেলয়ার মাস্টার, রিয়াজুল ইসলাম, মোহাম্মদ জুয়েল, বোচাগঞ্জের ফয়জুল আলম চৌধুরী বাবুল, নওশাদ সালাম চৌধুরী, আবু তাহের মৃধা, এজাজ আহম্মেদ সোনা, আকিল আহম্মেদ, মজিবর রহমান, মহিউদ্দিন আহম্মেদ, আঞ্জুয়ারা বেগম ময়না, ফুলবাড়ীর হারুন অর রশিদ, আতাউর রহমান, সেকেন্দার আলী দুলাল, মোহাম্মদ আলী মণ্ডল, হাকিমপুরের সিরাজুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম, সামছুর আলম, আবদুর রহিম মিয়া, আবদুর রউফ, আতিয়ার রহমান, সোহরাব হোসেন, বাবুল হোসেন, ছানাউল ইসলাম, মোহাম্মদ জাকিরুল, কাওসার আলী, আনিছুর রহমান, মোহাম্মদ মমিন, সাফিউল ইসলাম, মাফুজার রহমান, ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়ার আবদুর আজিজ, রোমান বাদশা, কামরুজ্জামান টিটু, রাশেদুল ইসলাম, নাসিরুল হক, রুহুল আমিন, বালিয়াডাঙ্গীর তফিল উদ্দিন, মিজানুর রহমান, মোহাম্মদ মাহাবুব, সোলেমান আলী, সাহাদত হোসেন, তসলিম উদ্দিন, আবদুল গফুর, রুহুল আমিন, আবদুর রহমান, বসির উদ্দিন, অ্যাডভোকেট আবু হাসান, শরিফ উদ্দিন, ইউসুফ আলী, রশিদুল ইসলাম, রফিকুর ইসলাম, রফিকুর ইসলাম, মোহাম্মদ দবির, আফসার আলী, বলজার রহমান, ফারাজুল ইসলাম, আফসার আলী, আবদুল কাদের, আনোয়ার হোসেন, ঠাকুরগাঁও সদরের আবদুল গফুর, আলাল উদ্দীন মাস্টার, আবদুল গফার, মকবুল হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, মতিয়ার রহমান, রেজওয়ানুল হক, আল মামুন, আবদুল হক, সইদুল হক, আজিজুল রহমান, নূর জামাল, লিয়াকত আলী, আল আমিন, আল মমিন, হাসান আলী, শাহিনুর রহমান, আশরাফ আলী, মকছেদ আলী, দাইমুল ইসলাম, ময়নুল হক, মোহাম্মদ রানা, মোহাম্মদ ছালেফুর, মোহাম্মদ বেলাল, মোহাম্মদ হেলাল, আনিছুর রহমান, মোহাম্মদ লিটন, নুর আলম, আসাদুল্লাহ আল পাবিল সবুজ, আনোয়ার হোসেন, খলিল হোসেন, আরিফ আলী, মোহাম্মদ রানা, জামাল পাইকার, লুৎফর রহমান, বাবু হোসেন, ফারুক হোসেন, ফারুক হোসেন. রুহুল আমিন, আল আমিন, খাদেমুল ইসলাম, আমিরুল ইসলাম আমু, আকতাবুল ইসলাম আতা, আবদুল কাদের, নইম উদ্দীন, মোহাম্মদ পায়েল, মোহাম্মদ আলমগীর, মোহাম্মদ সালাফি, রকিব হাসান, মোহাম্মদ আপন, মোহাম্মদ রুবেল, মকলেছুর রহমান, ফারুক হোসেন, হাসান আলী, আবুল হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, আজিজুল হক, রমজান আলী, আজগর আলী, ফয়জুল হক, রাজু ইসলাম, আবদুল জব্বার, রফিকুল ইসলাম, আলম ইসলাম, আমু রহমান, মোতালেব হোসেন, খাদেমুল ইসলাম, জামাল উদ্দীন, লাভলি আক্তার, আনিসা বেগম, নূর জাহান, সালিমা বেগম, করিমা বেগম, এনতাজুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, মইনুল ইসলাম, আবুল কাশেম, মোহাম্মদ মাহাবুব, লিপি বেগম, শিল্পী বেগম, মালেকা বেগম, জোসনা বেগম, নারগিস বেগম, আবদুল কাদের, মোহাম্মদ নইয়িমুদ্দীন, মোহাম্মদ আলমগীর, সোহেল শাহা, দুলু মাস্টার, মোহাম্মদ সামশুদ্দিন, মোজাম্মেল হক, ফজলুল হক, গোলাম ফারুক, তোফাজ্জল হোসেন, ওয়াজেদ আলী, আবদুস ছাত্তার, জমশেদ আলী, বজলার রহমান, মোহাম্মদ ফারজু, মোহাম্মদ সুলতান, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, মিঠুন চন্দ্র বর্মণ, ডিমলার শরিফ ইবনে ফয়সাল মুন, আবদুল লতিফ খান, তফেল উদ্দিন, গোলাম রব্বানী, মিজানুর রহমান, মাহাবুব আলম খান, কামরুল ইসলাম, আবুজার রহমান, আবু আনছার, আবদুল মান্নান, দুলাল আলম, রুহুল আমিন, আদিতমারীর নান্নু মিয়া, আদিতমারীর ছপিয়ার রহমান, তমিজার মাস্টার, আবদুল মান্নান, মশিয়ার রহমান লিটু, সাইফুল ইসলাম, আবদুল কাদের, শহিদার রহমান, গোলাম হোসেন, আজিজার রহমান, লালমনিরহাটের শামছুল হক, আবদুল কুদ্দুস, আবদুল জব্বার আলী, আবদুস সাত্তার আলী, জালাল মিয়া, রজব আলী, নায়েব আলী, সালামত আলী, মোজাম্মেল হক, রাজু মিয়া, স্বপন মিয়া, সাইদুল হক, আবদুস সালাম মিয়া, কেরামত আলী, হোসেন আলী, নয়ন মিয়া, শাহ আলম ভুট্টু, আনোয়ার হোসেন, মফিজুল হক, সুলতান আলী, ইসরাইল হক, মন্টু মিয়া, মোহাম্মদ হামিদুল, সাদেক মিয়া, মোহাম্মদ রাশেদুল, জাহাঙ্গীর আলী, রহিম বাদশা, রমজান আলী, মনিরুজ্জামান রুবেল, লিটন মিয়া, মোহাম্মদ স্বপন, পল সিংহ, মোহাম্মদ রোমান, মোহাম্মদ রবি, আবুল হোসেন, তনু, মনির হোসেন, মোহাম্মদ আরিফ, মোহাম্মদ হামিদুল, মোহাম্মদ সজীব, মোহাম্মদ কৌশিক, আল-আমিন, মাইদুল হোসেন, মেহেদী হাসান, রাকিব হাসান রনক, মেহেদী হাসান শামীম, সোহাগ হাসান, সুজন ইসলাম, মোহাম্মদ চয়ন, ছোট চয়ন, নোমান হাসান, রিফাত হোসেন, ফিরোজ আহম্মেদ, মোহাম্মদ বাঁধন, মোহাম্মদ সাইফুল, মোহাম্মদ মোক্তারুল, মোহাম্মদ রাসেল, রাজু মিয়া, মোহাম্মদ শাহিন, মোহাম্মদ হাসেম, মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, মোহাম্মদ রুবেল, মোহাম্মদ সাব্বির, মোহাম্মদ নাজমুল, মোহাম্মদ নুরুন্নবী, মোহাম্মদ এনামুল, মোহাম্মদ সাদ্দাম, দীপক চন্দ্র, দিলীপ চন্দ্র, মোহাম্মদ আনিছ, মোহাম্মদ জুয়েল, মোহাম্মদ আলিফ, মোহাম্মদ আশিকুর, মোহাম্মদ মুন্না, মোহাম্মদ রেজাউল, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, মোহাম্মদ মমিনুল, মোহাম্মদ আসাদুল, মোহাম্মদ রহিম, মোহাম্মদ আসাদ, মোহাম্মদ হানিফ, মোফাজ্জল হোসেন, মোহাম্মদ হাসিদুল, মোহাম্মদ জলিল, আবদুল কাদের, মোহাম্মদ মানিক, মোহাম্মদ খোরশেদ, মোহাম্মদ শাহিনুর, আজিজুল ইসলাম, রেজাউল ইসলাম, সুমন মিয়া, জামাল মিয়া, রবিউল ইসলাম, মিজানুর রহমান, সুমন সরকার এবং গোলাম কিবরিয়া রিপন।