পেঁয়াজের পর চালের দাম বাড়ানোর ষড়যন্ত্র চলছে: নাসিম

প্রকাশ: ১৯ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

মঙ্গলবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৪ দলের বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলছেন মোহাম্মদ নাসিম -ফোকাস বাংলা

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম এমপি বলেছেন, দেশে পেঁয়াজের পর এবার চালের দাম বাড়ানোর ষড়যন্ত্র চলছে। একটা অশুভ চক্র মানুষের ক্ষুধা নিয়ে রাজনীতি করে। এই অশুভ শক্তি কারা তা সবাই জানে। বিএনপি-জামায়াত এমন কিছু নেই যে তারা করতে পারে না। এই চক্র সবসময় আওয়ামী লীগ সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে চলেছে।

মঙ্গলবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৪ দলের বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে মোহাম্মদ নাসিম এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বাণিজ্য, কৃষি ও খাদ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্নিষ্টদের বলবো, চালের দাম বৃদ্ধির চক্রান্ত হচ্ছে। চক্রান্তকারীরা যেন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্যবৃদ্ধি করতে না পারে, সেজন্য সংশ্নিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোকে সমন্বিত পদক্ষেপ নিতে হবে।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন ঘোষণা দিলেন বিমানে পেঁয়াজ আনা হচ্ছে, তখনই দাম কমা শুরু হল। আবার অনেকস্থানে নষ্ট পেঁয়াজ নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। এ থেকেই বোঝা যায় পেঁয়াজ নিয়ে চক্রান্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে। দেশবাসীকে অনুরোধ করবো নতুন সড়ক পরিবহন আইন মেনে চলুন। আর পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের অনুরোধ করবো, মানুষকে জিম্মি করে ধর্মঘট করবেন না। সড়ক পরিবহন আইন নিয়ে কথা থাকলে টেবিলে বসে সমস্যার সমাধান করুন। পরিবহন ধর্মঘটের মাধ্যমে মানুষকে জিম্মি করে আন্দোলন ১৪ দল অতীতেও সমর্থন করেনি, এখনও করে না

প্রধানমন্ত্রী বরাবর বিএনপির দেওয়া চিঠির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, সংসদে তারা এ নিয়ে একটি শব্দও বলেননি। অথচ এখন চিঠি দিয়ে বলছে, চুক্তি হয়েছে। কোনো চুক্তি হয়নি, হয়েছে সমঝোতা স্মারক। তাহলে এ কথা বলার অর্থটা কি?

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনুর সভাপতিত্বে বৈঠকে ১৪ দল নেতাদের মধ্যে নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, শরীফ নূরুল আম্বিয়া, এস কে সিকদার, ডা. শাহাদাত হোসেন, ডা. অসীত বরণ রায়, আনিসুর রহমান মল্লিক, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।