পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণের জন্য সিডিএকে দুষলেন তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশ: ১১ জানুয়ারি ২০২০     আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০২০   

চবি সংবাদদাতা

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ- সমকাল

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ- সমকাল

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ধারা অব্যাহত থাকলে মানুষ একদিন বিলুপ্ত হয়ে যাবে। এটি মাথায় রেখেও উন্নয়ন কর্মকাণ্ড করা যায়। কিন্তু দুঃখের বিষয়, কিছু সরকারি প্রতিষ্ঠান এটি খেয়াল রাখে না। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) মতো প্রতিষ্ঠান রাস্তা বানাতে গিয়ে ৩০০ ফুট পাহাড় কেটে সমতল করেছে। এটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

শনিবার দুপুরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বন ও পরিবেশবিদ্যা ইনস্টিটিউট অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ক্যাম্পাসের ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ আক্ষেপ করে বলেন, শিল্প বিপ্লবের আগে বৈশ্বিক তাপমাত্রা যা ছিল, বর্তমানে তা এক ডিগ্রি বেড়েছে। এ কারণে অস্ট্রেলিয়ায় দাবানলের মতো ঘটনা দেখতে পাচ্ছি। সাইবেরিয়াতেও খরতাপ বাড়ছে।

তিনি বলেন, ষাটের দশকে চট্টগ্রাম নগরের আগ্রাবাদ ছিল অকর্ষণীয় জায়গা। কিন্তু বর্তমানে মানুষ সেখান থেকে পালিয়ে যাচ্ছে। এখন বর্ষকালে সেখানে জোয়ারের পানি চলে আসে। নগরের অনেক এলাকায়ও এই পানি দেখা যায়। এটি আগে ছিল না। জলবায়ু পরিবর্তনের সংকট মোকাবিলায় বন ও পরিবেশবিদ্যা ভূমিকা রাখতে পারে বলেও জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক শিরীন আখতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন নেদারল্যান্ডসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও চবির প্রাক্তন শিক্ষার্থী শেখ মোহাম্মদ বেলাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন ২৪ পদাতিক ডিভিশন, চট্টগ্রামের জিওসি মেজর জেনারেল এসএম মতিউর রহমান। স্বাগত বক্তব্য দেন অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

অনুষ্ঠানে মেজর জেনারেল মতিউর রহমান বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী শান্তিরক্ষা মিশনে এক নম্বর দেশ। বিভিন্ন দুর্যোগে সবার আগে ছুটে আসে সেনাবাহিনী। শিক্ষা ক্ষেত্রেও এই বাহিনী অনন্য অবদান রেখে চলেছে। এ ছাড়া সেনাবাহিনী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতেও সম্পৃক্ত রয়েছে।