দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা একেবারেই ভঙ্গুর: মির্জা ফখরুল

প্রকাশ: ৩০ জুলাই ২০২০     আপডেট: ৩০ জুলাই ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা একেবারেই ভঙ্গুর। দেশের করোনাকালে এটা আবারো প্রমাণিত হয়েছে। কোনো চিকিৎসা ব্যবস্থা গড়ে উঠেনি। শুধু লুটপাট আর দুর্নীতি করে দেশের এই সেবা খাতকে ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার স্বেচ্ছাসেবক দলের সদ্য প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারীর বাবুর বাসায় পরিবারের সদ্যেদের সান্ত্বনা জানানোর পর সাংবাদিকদের কাছে তিনি একথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, শফিউল বারী বাবুর মৃত্যুতে আবারো সত্য উৎঘাটিত করেছে যে, বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা খুব বেহাল। এখানের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার প্রতি মানুষ আস্থা রাখতে পারে না। বাবুর অসুস্থতা, তা চলে যাওয়া এটাই প্রমাণ করে।

শফিউল বারী বাবুকে ‘মেধাবী’ নেতা হিসেবে অভিহিত করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বাবুর মতো একজন জনপ্রিয়, সচেতন রাজনৈতিক নেতা এভাবে চলে যাবে এটা আমরা কল্পনাই করতে পারিনি। তার অল্প সময়ের জীবনের ক্যারিয়ার বর্ণাঢ্য। তাকে শুধু বিএনপির জন্য নয়, তাকে দেশের মানুষের জন্য, মানুষের জন্য প্রয়োজন ছিলো। তার সম্ভাবনা ছিলো।

মির্জা ফখরুল বলেন, তিনি এদেশের রাজনীতির ক্ষেত্রে একটা ব্যতিক্রম। দুইটা বাচ্চা রেখে গেছে। মাথা গুজার ঠাঁইটুকু নাই। এখনো ভাড়া বাসায় থাকেন। তার স্ত্রীকে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। আমার একটাই অনুরোধ থাকবে সকলের কাছে- তার পরিবার, স্ত্রী-সন্তানদের জন্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেই।

তিনি বলেন, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আমাকে বলেছেন- বাবুর স্ত্রীর সাথে দেখা করে বলেন যে, আমরা তার সঙ্গে আছি, আমরা সবাই তার সঙ্গে আছি, এই লড়াই শুধু তার স্ত্রী একা লড়বে না, তার সাথে আমরাও লড়বো।

নিউ ইস্কাটনে শাইনপুকুর এপার্টমেন্টে প্রয়াত শফিউল বারী বাবুর বাসায় গিয়ে বিএনপি মহাসচিব বাবুর স্ত্রী বিথীকা বিনতে হোসাইনের সাথে কথা বলে সমবেদনা জানান। বাবুর ছোট দুই ছেলে মেয়ে ফাতেমা বারী তুহিন ও আয়হান বারী সাঈদকে কাছে নিয়ে আদর করেন মির্জা ফখরুল।

এ্ সময় বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান রতন, প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, মোস্তাফিজুর রহমান, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, গোলাম সারোয়ার, ইয়াসীন আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।