বিচারবহির্ভূত হত্যা বন্ধের দাবি ওয়ার্কার্স পার্টির

প্রকাশ: ০৭ আগস্ট ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

অপরাধ দমনের নামে ‘ক্রসফায়ার’, ‘এনকাউন্টার’ কিংবা ‘আত্মরক্ষার্থে গুলি চালিয়ে’ হত্যাসহ সবরকমের বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বন্ধ করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি।

শুক্রবার ওয়ার্কার্স পার্টির এক বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড দেশের সংবিধানের মৌলিক অধিকার ভোগের ৩১ ও ৩২ ধারার সম্পূর্ণ বিরোধী এবং আইনের শাসনের পরিপূর্ণ লংঘন ও অমানবিক। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো অংশকে এই অধিকার দিলে তা কি পরিণতি নিতে পারে কক্সবাজারে পুলিশি তল্লাশি চৌকিতে অবসরপ্রাপ্ত সেনা অফিসার হত্যাই তার প্রমাণ।’

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এটা সাধারণ মানুষের জন্যই নয়, রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রেও বিপদজনক পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে। এই উপলব্ধি থেকেই কক্সবাজারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেনা ও পুলিশবাহিনী প্রধানদ্বয় নজিরবিহিন যৌথ সংবাদ সম্মেলনে দেশবাসীকে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু এর উৎস বন্ধ করা না গেলে রাষ্ট্র ও সমাজ উভয়ই আরো বিপদাপন্ন হবে। ওয়ার্কার্স পার্টি কক্সবাজার হত্যাকাণ্ডের পূর্ণ তথ্য জনগণকে অবহিত করা ও দায়ী সকলকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছে।’

এতে আরও বলা হয়, বিচারবহির্ভূত হত্যকাণ্ড বন্ধের ওয়ার্কার্স পার্টির এই দাবি নতুন নয়। বিএনপি শাসন আমলে এ ধরনের হত্যাকাণ্ড শুরুর সময় থেকেই ওয়ার্কার্স পার্টি এই দাবি জানিয়ে আসছে। এটা বন্ধের জন্য বর্তমান সরকারও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ছিল।