নির্বাচনের নামে বিএনপি 'তামাশা' করেছে: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশ: ১৮ অক্টোবর ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকার ও নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই বিএনপি উপনির্বাচনে অংশ নিয়েছে। নির্বাচনে অংশগ্রহণের নামে বিএনপি 'তামাশার নাটক' করেছে।

রোববার রাজধানীর কাকরাইলের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। সংসদ ভবনের সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ অনুষ্ঠানে যুক্ত হন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, গত এক দশকে গণতান্ত্রিক আচার-আচরণ ও রীতিনীতিতে ব্যর্থ বিএনপি একটি 'নালিশ পার্টি'তে পরিণত হয়েছে। নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার এবং নিজেদের ব্যর্থতার দায় নির্বাচন কমিশন ও সরকারের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার তৎপরতা বিএনপির নিত্যনৈমিত্তিক কাজে পরিণত হয়েছে। অথচ জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার সুরক্ষা ও সুসংহত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ও আওয়ামী লীগ বদ্ধপরিকর।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বরাবরের মতো এবারও নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতাদের কথাবার্তা ও আচার-আচরণে দেশবাসী গভীরভাবে হতাশ হয়েছে। ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনেও দেশবাসী তাদের চিরায়ত অপরাজনীতির কৌশল প্রত্যক্ষ করেছে।

তিনি বলেন, অতীতেও নির্বাচন এলেই বিএনপি জনগণের কাছে না গিয়ে নানা কূটকৌশল ও অপতৎপরতা চালিয়েছে। নিজেদের রাজনৈতিক ব্যর্থতার কারণে নিশ্চিত পরাজয় জেনে তারা সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ বিনষ্টে বিভ্রান্তিকর মন্তব্য করে থাকে।

ভয়াবহ ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, খুনিরা সেদিন শেখ রাসেলকেও ছাড়েনি। বিশ্ব ইতিহাসের জঘন্যতম পৈশাচিক এই হত্যাকাণ্ডে সেদিন বিশ্বমানবতা থমকে গিয়েছিল, বাংলাদেশ হয়েছিল লাঞ্ছিত। শেখ রাসেলের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, রাসেল মানবিক গুণাবলির অধিকারী ছিলেন। তিনি অত্যন্ত মেধাবী, বিচক্ষণ ও তীক্ষষ্ট মস্তিস্কের অধিকারী ছিলেন। শৈশবেই তার মধ্যে দেশপ্রেম জাগ্রত ছিল। শেখ রাসেল সকলের স্মৃতিতে অম্লান, অনুভূতিতে অক্ষয় আর চেতনায় চিরজাগরূক। শিশুদের অধিকার বাস্তবায়নের মাধ্যমে তাদের জন্য বাসযোগ্য এক পৃথিবী গড়ে উঠুক- সেটাই আমরা চাই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জানান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি সোমবার ঘোষণা করা হবে। পর্যায়ক্রমে দলের অন্য সহযোগী সংগঠনগুলোর পূর্ণাঙ্গ কমিটিও দেওয়া হবে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহের সভাপতিত্বে এ সভায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক এ কে এম আফজালুর রহমান বাবু প্রমুখ।