বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ওয়ান ইলেভেনে অনৈতিক সরকার দেশকে বিরাজনীতিকরণের উদ্দেশ্যে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা, বানোয়াট ও কাল্পনিক মামলা দায়ের করে। বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাগুলো সচল রেখে ফরমায়েসী রায় প্রদানের মাধ্যমে বর্তমান সরকার ওয়ান ইলেভেন সরকারের লক্ষ্য বাস্তবায়নকে অনুসরণ করছে। ষড়যন্ত্র করে বিরাজনীতিকরণের দিকে হাঁটছে সরকার।

রোববার এক বিবৃতিতে এসব বলেন তিনি। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিনের জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠানোর প্রতিবাদে এ বিবৃতি প্রদান করা হয়।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ১/১১'র জোর জবরদস্তির সরকার আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলা দায়ের করেছে। পরবর্তীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে বিভিন্নভাবে অবৈধ পন্থায় সেই মামলাগুলো প্রত্যাহার কিংবা নিষ্পত্তি করলেও বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাগুলো সচল রেখে ফরমায়েসী রায় প্রদান করছে, যা সম্পূর্ণরুপে সুষ্ঠু রাজনীতিকে বাধাগ্রস্থ করা। আওয়ামী লীগ সরকারের এই দ্বিচারিতা ও ষড়যন্ত্রমূলক আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং এ ধরনের অপকৌশল ও অপতৎপরতা থেকে দূরে সরে আসার আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, ওয়ান ইলেভেনে মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়। মামলা চলাকালে তার আইনজীবীরা আইনগতভাবে মামলা মোকাবিলা করলেও কোনো বক্তব্য আমলে না নিয়ে তার বিরুদ্ধে একতরফা রায় ঘোষণা করা হয়। এই ফরমায়েসী রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করা হলে আদালত উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শুনে মীর নাছিরের বিরুদ্ধে নিম্ন আদালতের দেয়া সাজা বাতিল করে দেন। কিন্তু ১/১১'র জরুরি অবস্থার অনৈতিক সরকারের ধারাবাহিকতায় বর্তমান প্রতিহিংসাপরায়ণ সরকারও বিএনপি নেতৃবৃন্দকে রাজনীতি ও নির্বাচন থেকে দূরে রাখার অসৎ উদ্দেশ্যে অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়কে ব্যবহারের মাধ্যমে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মীর নাছিরের সাজা বহাল রাখার ব্যবস্থা করে।