ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ক্ষমতায় যেতে ওঁৎ পেতে থাকা বিএনপির জন্মগত অভ্যাস। মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে প্রকাশ্যে এবং গোপনে বিএনপির অগণতান্ত্রিক চর্চায় কোনো ফল আসবে না।

সোমবার নিজের নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন এবং দলের অসচ্ছল, ত্যাগী ও প্রয়াত নেতাকর্মীদের পরিবারের মধ্যে অনুদান বিতরণ ও প্রয়াত নেতাকর্মীদের স্মরণ সভায় ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন। সংসদ ভবনের সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

ওবায়দুল কাদের বলেন, একটি দল আন্দোলন ও নির্বাচনে একের পর এক ব্যর্থ হয়ে জনগণের ওপর প্রতিশোধ নিতে আবার আগুন সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছে। বিএনপি নির্লজ্জভাবে বলে তারা না-কি আগুন সন্ত্রাসে বিশ্বাসী নয়। গানপাউডার দিয়ে মানুষ পোড়ানো বিএনপির অপরাজনীতির ধারাবাহিকতা।

বিএনপির রাজপথ দখলের হুমকি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, এখনও সময় আছে আগুন নিয়ে খেলবেন না। মানুষের জীবন ও সম্পদ ধ্বংসের রাজনীতি প্রকারান্তরে জনগণের কাছে আপনাদের রাজনীতির অপমৃত্যু ঘটতে পারে। জনগণ আপনাদের কাছে রাজপথ লিজ দেয়নি যে দখলে নেবেন। অপদখল থেকে কীভাবে রাজপথ মুক্ত করতে হয় জনগণ তা জানে।

অসচ্ছল ও অসুস্থ লোক যে দলেরই হোক তাদের সাহায্য সহযোগিতা করতে দলের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ক্ষমতা চিরস্থায়ী নয়, তাই ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না।

তিনি বলেন, ভূমিদস্যু, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, নারী অবমাননাকারীর সঙ্গে যারাই জড়িত, তাদের জন্য আওয়ামী লীগের দরজা চিরকালের জন্য বন্ধ। রাজনীতিতে নেতারা হবেন আদর্শগত শিক্ষক, তাদের অনুসরণ করতে হবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, তার (কাদের) নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ইতোমধ্যেই প্রায় সবকিছুই পূরণ করা হয়েছে। প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে গেছে এবং শিগগিরই গ্যাস সংযোগও দেওয়া হবে। নোয়াখালীতে ইতোমধ্যেই সড়ক যোগাযোগ অবকাঠামো উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ফেনী-চৌমুহনী-সোনাপুর সড়কের চারলেন প্রকল্প চলমান রয়েছে। রেল যোগাযোগ আরও উন্নত করতে নেওয়া হচ্ছে পরিকল্পনা। দাগনভূইয়া-বসুরহাট-কবিরহাট-সোনাপুর সড়ক প্রশস্তকরণ ছাড়াও কবিররহাট-সোনাপুর সড়কের বাঁক সরলীকরণ করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে কোম্পানীগঞ্জ প্রান্ত থেকে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খান, সাধারণ সম্পাদক নূরনবী চৌধুরী, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দিন, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা প্রমুখ।

বিষয় : ওবায়দুল কাদের আওয়ামী লীগ

মন্তব্য করুন