তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে কোনোভাবেই ছোবল মারার সুযোগ দেওয়া যাবে না। একে কঠোরভাবে দমন করা হবে।

শুক্রবার রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সেক্টর কমান্ডার মেজর জেনারেল সি আর দত্ত বীরউত্তমের স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ যৌথভাবে এ সভার আয়োজন করে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, একাত্তরে যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিল, সেই আন্তর্জাতিক ও মৌলবাদী অপশক্তি মিলে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশ রাষ্ট্রকে হত্যার উদ্দেশ্যেই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। সেই কারণেই ১৯৭৫ সালের পর আমাদের রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মূল চেতনাকে বিসর্জন দিয়ে রাষ্ট্র পেছন দিকে হাঁটা শুরু করে।

সাম্প্রদায়িক অপশক্তি বিনাশ হয়নি উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, মাঝেমধ্যে সেই অপশক্তি ফণা তোলে ছোবল মারার জন্য। কিন্তু যে সম্মিলিত শক্তিতে দেশ স্বাধীন হয়েছে, সেই শক্তির কাছে তারা সবসময় পরাজিত হয়েছে। ভবিষ্যতেও হবে।

সি আর দত্তের কথা স্মরণ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দেশপ্রেমিক, সাহসী, সৎ, অসাম্প্রদায়িক, নিরহংকার এবং সবাইকে আপন করে নেওয়ার আশ্চর্য ক্ষমতার অধিকারী চিত্ত রঞ্জনের জীবন থেকে অনেক শেখার রয়েছে।

মহানগর সর্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি শৈলেন্দ্র নাথ মজুমদারের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা সংসদ সদস্য উষাতন তালুকদার, ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক, নির্মল রোজারিও, সাংবাদিক স্বপন কুমার সাহা, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত, সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জি প্রমুখ।

এদিকে শুক্রবার বিকেলে রাঙ্গুনিয়া সংঘরাজ ভিক্ষু সমিতি ও রাঙ্গুনিয়া উপজেলা বৌদ্ধ সমিতির সভাপতি এবং উপজেলার কেন্দ্রীয় সৈয়দবাড়ি ধর্মচক্র বিহারের অধ্যক্ষ প্রয়াত বিমলজ্যোতি মহাস্থবিরের জাতীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ক্ষেত্রে পৃথিবীর অন্যান্য দেশের কাছে দৃষ্টান্ত। সাম্প্রদায়িক অপশক্তির স্থান এ দেশ হতে পারে না।

বিষয় : তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

মন্তব্য করুন