হেফাজতে ইসলামের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে সরকার উস্কানি দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মঙ্গলবার রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি।

হেফাজতের সঙ্গে বিএনপির কোনো সম্পর্ক নেই দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, 'হেফাজত কোনো রাজনৈতিক সংগঠন নয়। তারা বায়তুল মোকাররমে একটি সাধারণ বিক্ষোভ করতে চেয়েছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগ ও পুলিশ তাদের ওপর দুই দিক থেকে হামলা চালিয়েছে। হেফাজতের কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের এক নেতা গুলি করছে, সেই ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশিতও হয়েছে। অথচ সরকার প্রচার চালাচ্ছে- আমরা হেফাজতকে সমর্থন ও উস্কানি দিয়েছি। হেফাজতের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে উস্কানি তো দিয়েছে সরকার।'

তিনি আরও বলেন, 'সাম্প্রদায়িক শক্তিকে বিএনপি নয়, সরকারই মদদ দিচ্ছে। ক্ষমতাসীন দল প্রথম থেকে উস্কানি দিয়ে আজকে এই অবস্থার সৃষ্টি করেছে। সরকারের পুলিশ ও আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসী বাহিনীর গুলিতে ও আক্রমণে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাধারণ মানুষের রক্ত ঝরেছে। এই হত্যাযজ্ঞের প্রতিবাদ জানিয়েছি।'

মির্জা ফখরুল বলেন, 'হত্যাযজ্ঞের প্রতিবাদে সারাদেশে মহানগরগুলো প্রতিবাদ সমাবেশ এবং জেলা সদরগুলোতে বিএনপির প্রতিবাদ মিছিল হয়েছে। দুই দিনের এ কর্মসূচিতে বেশিরভাগ জায়গায় পুলিশ ও আওয়ামী ক্যাডার বাহিনী সাধারণ মানুষের ওপর চড়াও হয়েছে, আক্রমণ করেছে। অথচ প্রচার করা হচ্ছে- হেফাজতি তাণ্ডব চলছে। হেফাজতের সঙ্গে আমাদের এই কর্মসূচিগুলোর কোনো সংশ্রব নেই। আমরা শুধু সাংবিধানিকভাবে দেশের মানুষের হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ করছি।' 

করোনাভাইরাস মহামারি আশঙ্কাজনকভাবে বাড়তে থাকলেও তা নিয়ন্ত্রণে সরকারের দৃশ্যমান কোনো উদ্যোগ নেই অভিযোগ করে 
বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'করোনা সংক্রামণ মারাত্মকভাবে, ভয়ংকরভাবে বাড়ছে। সরকার এটাকে কখনোই সঠিকভাবে উপলব্ধি করেনি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে ১৮ দফা নির্দেশনা জারি করেছে। কিন্তু এটা বাস্তবায়নে সরকারের উদ্যোগ দেখা যায়নি।'

সংবাদ সম্মেলনে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।