মামুনুল হক ও তার 'স্ত্রী'কে রিসোর্টে হেনস্তার বিচার চেয়েছে হেফাজতে ইসলাম। সংগঠনের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে সংসদে আলোচনারও নিন্দা করেছে হেফাজত। 

সোমবার জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসায় হেফাজতের জ্যেষ্ঠ নেতাদের বৈঠকের পর বিবৃতিতে এসব কথা বলা হয়েছে। হেফাজতের নায়েবে আমির মাওলানা আব্দুল হামিদ পীর সাহেব মধুপুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভা থেকে বিবৃতিতে বলা হয়, মাওলানা মামুনুল হক তার স্ত্রীকে নিয়ে সোনারগাঁও রিসোর্টে গিয়েছিলেন। ইসলামি শরিয়তের আলোকে তার বিয়ে পরিপূর্ণ শুদ্ধ। এ নিয়ে বিভ্রাতির অবকাশ নেই।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গত ২৬, ২৭ ও ২৮ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হাটহাজারী, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ, মুন্সীগঞ্জসহ সারাদেশে হেফাজতকর্মীসহ প্রতিবাদী মানুষের ওপর হামলা করা হয়েছে। এতে ২০ জন শাহাদাতবরণ করেছেন। এসব হত্যাকাণ্ড ও হামলার বিষয়ে বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। হেফাজতকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। তাদের বাসা, মাদ্রাসায় তল্লাশির নামে হামলা ও হয়রানি করা হচ্ছে। তা বন্ধ করতে হবে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, হতাহতদের পরিবারের খোঁজখবর নিতে হেফাজতে ইসলামের টিম সরেজমিন পরিদর্শন শেষে প্রতিবেদন তৈরি করবে। যথাসাধ্য সহায়তা করবে। সভায় উপস্থিত ছিলেন হেফজাতের মহাসচিব মাওলানা নুরুল ইসলাম, উপদেষ্টা মাওলানা আবুল কালাম, নায়েবে আমির মাওলানা আব্দুল আউয়াল, মাওলানা মাহফজুল হক, ড. আহমদ আব্দুল কাদের, মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব, মাওলানা মামুনুল হক প্রমুখ।

মন্তব্য করুন