বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, করোনা সংক্রমণের পাশাপাশি হেফাজতি সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসকেও রুখে দিতে হবে। করোনা নিয়ে সরকারের এতদিনের পদক্ষেপ ছিল অস্পষ্ট ও দ্বিধান্বিত, হেফাজতের ক্ষেত্রেও তাই। দেশবাসী আশা করে, সরকার এবার উভয় মহামারির বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেবে। তা না হলে করোনায় মানুষের যেমন প্রাণ যাবে, তেমনি হেফাজতি সন্ত্রাসের বিস্তার দেশকে অস্থিতিশীল করে তুলবে।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ওয়ার্কার্স পার্টি ঢাকা মহানগর আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে রাশেদ খান মেনন এসব কথা বলেন। রমজান ও লকডাউনকে সামনে রেখে নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখা ও রেশনিং চালুর দাবিতে এই মানববন্ধন করা হয়।

মেনন বলেন, মালিকদের কাছে আত্মসমর্পণ করে সরকার শিল্পকারখানা খোলা রাখার কথা বলেছে। কিন্তু গতবারের মতো এবারও শ্রমিকদের দায় নেয়নি। শ্রমিকদের জন্য বরাদ্দ গতবারের তহবিলও অব্যবহূত রয়ে গেছে। আর মালিকরা প্রণোদনার টাকা পাচ্ছে। সরকারের পাশাপাশি ওয়ার্কার্স পার্টির কর্মীদেরও করোনা আক্রান্ত জনগণের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান মেনন।

ঢাকা মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক কিশোর রায়, নারী মুক্তি সংসদের নেত্রী শাহানা ফেরদৌসি লাকী, গৃহশ্রমিক নেত্রী মুর্শিদা আখতার নাহার, গার্মেন্টস শ্রমিকনেতা রফিকুল ইসলাম সুজন, তপন সাহা, রিকশা শ্রমিকনেতা আনোয়ার আলী, রেলওয়ে শ্রমিকনেতা ওমর ফারুক সুমন, হকার নেতা আরিফ চৌধুরী প্রমুখ।

মন্তব্য করুন