তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য চিকিৎসার মধ্যে দলটির রাজনীতি আটকে আছে। দেশের মানুষের স্বাস্থ্য উন্নয়ন অগ্রগতি নিয়ে বিএনপির নেতা-নেত্রীরা চিন্তিত নন।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে দৈনিক ইত্তেফাকের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক প্রয়াত তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়ার স্মরণসভায় এ কথা বলেন তিনি। স্বাধীন সংবাদপত্র পাঠক সমিতি আয়োজিত স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি এস এম জামাল উদ্দীন। এতে উপস্থিত ছিলেন অধুনালুপ্ত সম্পাদক ও মানিক মিয়া ফাউন্ডেশনের মহাসচিব সৈয়দ তসাররফ আলী, রাজনীতিক নাসিরুল হক, সাংবাদিক মানিকলাল ঘোষ প্রমুখ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‌‘দেশের উন্নয়ন অগ্রগতি অনেকে দেখেও দেখেন না, বুঝেও বোঝেন না। তাদের রাজনীতিকরা খালি খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে আবর্তিত। দেশের মানুষের স্বাস্থ্য উন্নয়ন অগ্রগতি নিয়ে তারা কোনোভাবে চিন্তা করে বলে মনে হয় না।’

তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়াকে স্মরণ করে ড. মাহমুদ বলেন, ‘একটা সময় ছিল যখন পত্রিকা বলতে ইত্তেফাকসহ দু-একটি পত্রিকাকেই বোঝাত। তবে সেগুলোর মধ্যে ইত্তেফাক সবচেয়ে বেশি প্রমিনেন্ট ছিল। তখন মানুষের শোষণ বঞ্চনা তুলে ধরা এবং জনগণকে প্রতিবাদমুখর করার ক্ষেত্রে ইত্তেফাকের ভূমিকা ছিল অনবদ্য। আর সেই ইত্তেফাকের সম্পাদক ছিলেন তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া। স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসে তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়ার প্রতি শ্রদ্ধা জানান তিনি।’

তথ্য ও সম্প্রচার বলেন, ‘বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। বাংলাদেশ আজকের সমস্ত সূচকে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে। মানব উনয়ন সূচক, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক সূচকসহ সব সূচকেই পেছনে ফেলেছে। বাংলাদেশ যখন স্বাধীন হয়, তখন পশ্চিম পাকিস্তান বাংলাদেশের তুলনায় ৭০ ভাগ ধনী ছিল। এখন অনেক সূচেকে সূচকে ভারতকে ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিউইয়র্ক ভিত্তিক ম্যাগাজিন ব্লুমবার্গে বাংলাদেশের উন্নয়ন নিয়ে একটি আর্টিকেল প্রকাশিত হয়েছে। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ব্লুম বার্গে প্রকাশিত আর্টিকেলটি পড়ার জন্য বিশেষ অনুরোধ করেন মন্ত্রী। এটি পড়ার পর মির্জা ফখরুলকে সমালোচনা করার অনুরোধ করেন।