চিত্রনায়িকা পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টার মামলায় গ্রেপ্তার প্রেসিডিয়াম সদস্য নাসির ইউ মাহমুদের বিরুদ্ধে এখনই সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবে না জাতীয় পার্টি (জাপা)। দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের সমকালকে বলেছেন, 'নাসির মন্দ লোক নয়, কীভাবে হয়েছে, জেনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে'।

বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের বলেছেন, নাসির মাহমুদ ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই জাতীয় পার্টির সদস্য। মাঝে তিনি নিষ্ক্রিয় ছিলেন। দলীয় কর্মকাণ্ডে সক্রিয় হওয়ায় তাকে ২০২০ সালে প্রেসিডিয়াম সদস্য করা হয়। দলের প্রয়োজনে তাকে পাওয়া যেত। কেউ কখনো বলেনি, নাসির মাহমুদ খারাপ মানুষ। তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। নানা সামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িত রয়েছে। কখনো এমন কিছু দেখেনি বা শুনিনি যাতে নাসির মাহমুদ খারাপ মানুষ মনে হতে পারে। তিনি উত্তরা ক্লাবের তিনবারের নির্বাচিত সভাপতি ছিলেন। উত্তরা ক্লাবের সদস্য শিক্ষিত ও প্রতিষ্ঠিত মানুষ। তারা তো একজন খারাপ মানুষকে তাদের সভাপতি হিসেবে বেছে নেবেন না!

নাসির মাহমুদের বিরুদ্ধে নায়িকা পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠার পর হতবাক হয়েছেন বলে জানিয়েছেন জাপা চেয়ারম্যান। তিনি সমকালকে বলেছেন, 'অভিযোগ শোনার পর আমি শকড! দলীয় ফোরামে তার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আলোচনা হবে। যাচাই বাছাই করে দেখা হবে কী ঘটেছিল। একজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এলেই তিনি অপরাধী হয়ে যান না।'

নাসির মাহমুদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে বিচার কার্যক্রমের দিকে নজর রাখবেন বলে জানিয়েছেন জিএম কাদের। তিনি বলেছেন, অতীতে নাসিরের বিরুদ্ধে কোথাও কোনো অভিযোগ আসেনি। নৈতিক, আর্থিক কোনো ধরনেরই অভিযোগ আসেনি। যদি তিনি এ মামলায় আদালতে দোষী প্রমাণিত হন, তাহলে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী যা ব্যবস্থা নেওয়ার, তাই নেওয়া হবে। নাসির অপরাধী হয়ে থাকলে, জাতীয় পার্টি তাকে প্রশ্রয় দেবে না। বাঁচানোরও চেষ্টা করবে না।


বিষয় : জাতীয় পার্টি পরীমণি

মন্তব্য করুন