ঐক্যবদ্ধ হেফাজতে ইসলাম' গড়ার ডাক দিয়েছেন কওমী মাদ্রাসাভিত্তিক সংগঠনটির কমিটি থেকে বাদ পড়া নেতারা। প্রয়াত শাহ আহমেদ শফীর ছোট ছেলে আনাস মাদানীর নেতৃত্বে তারা এ ঐক্য গড়ে তুলবেন বলে জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় এ কথা জানানো হয়। এ সময় আনাস ও তার ভাই ইউসুফ মাদানী উপস্থিত ছিলেন। তারা হেফাজতের নেতৃত্ব নিয়ে কিছু না বললেও আলেমদের একতার ওপর জোর দিয়েছেন।

সভায় সাভার মাদ্রাসার মুফতি হেলাল উদ্দিন বলেন, আনাস মাদানীর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে হেফাজতে ইসলামকে সংগঠিত করতে হবে। যদি তাকে সামনে রেখে এগিয়ে যাওয়া যায় তাহলে শফি হজুরের খুনিদের বিচার এই বাংলার মাটিতে হবেই।

তিনি বলেন, হেফাজতকে হাইজ্যাক করে কিছু করা যাবে না। এ ধরনের কাজ যারা করছে তারা ভুল পথে আছেন।

আনাস মাদানী বলেন, এ দেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো, আলেম সমাজ আজ ঐক্যবদ্ধ নয়। তাই সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

তিনি বলেন, 'আহমেদ শফীর স্বাভাবিক মৃত্যু হয়নি। এর জন্য যারা দায়ী তাদের অবিলম্বে বিচারের আওতায় আনতে হবে।' কওমি মাদ্রাসা খুলে দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, 'নিরীহ ও নিরপরাধ আলেমদের যেন কোনো প্রকার হয়রানি না করা হয়।'

লিখিত বক্তব্যে আনাস মাদানী বলেন, আল্লামা শাহ আহমদ শফী সাদামনের বিশাল হৃদয়ের ব্যক্তিত্ব ছিলেন। ছিলেন উম্মাহর কল্যাণকামী। জনসাধারণের উদ্দেশ্যে তিনি যেমন বয়ান করেছেন, তেমনি আলেম সমাজকেও নসিহত করেছেন খোলামন নিয়ে। তার মিশন ছিল আলেমরা শুধু বস্তুগত ও জাগতিক দৃষ্টি লালন করবেন না, বরং তারা আধ্যাত্মিকভাবে এগিয়ে যাবেন। তিনি আলেমদের জাগাতে চেয়েছেন শেকড় থেকে। তিনি বলতেন, আলেমগণ এক হয়ে গেলে দেশে আর কোনো সমস্যা থাকবে না।\হ

আল্লামা শফীর আরেক ছেলে ইউসুফ মাদানী বলেন, কিছু লোক ইসলামের কথা বলে তারা উল্টো কাজ করছেন। এ পথ থেকে তাদের ফিরে আসতে হবে। তারা (বাবুনগরী ও তার অনুসারীরা) যা করছেন সেটা ইসলামের কাজ না। কারও পেছনে গীবত গাওয়াকে ইসলাম সমর্থন করে না।

আল্লামা শাহ আহমদ শফী (রহ.)-এর জীবন, কর্ম, অবদান ও চলমান সংকট নিরসনে উলাময়ে কেরামের করণীয় বিষয়ে এ আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লালবাগ মাদ্রাসার মুফতি ফয়জুল্লাহ, ফরিদাবাদ মাদ্রাসার শায়খুল হাদীস মুফতি নুরুল আমিন হাটহাজারী মাদ্রাসার সাবেক মুহাদ্দিস মাওলানা নুরুল ইসলাম জাদীদ, পটুয়াখালীর মাওলানা আব্দুল হক কাউসারী, মাওলানা ইসমাতুল্লাহ কাসেমী, মাওলানা আমিনুল ইসলাম, মাওলানা আব্দল কাদের বরিশাল, মাওলানা কামরুল ইসলাম, সিলেটের মাওলানা আবদুল মালিক চৌধুরী, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একাংশের নেতা মাওলানা শেখ মুজিবুর রহমান।

বিষয় : আহমেদ শফী আনাস মাদানী হেফাজত

মন্তব্য করুন