সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন স্থগিত চেয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদাকে রোববার আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। 

সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ আইনজীবীর পক্ষে ই-মেইলে পাঠানো নোটিশে বলা হয়েছে, ২৮ জুলাই অনুষ্ঠিতব্য উপনির্বাচন স্থগিত করা যাবে না বলে সিইসি সম্প্রতি যে বক্তব্য দিয়েছেন, তা আইনের সঠিক ব্যাখ্যা নয়। নির্বাচন কমিশনের উচিত চলমান করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে লকডাউনের সময় নির্বাচন না করা।

আইনের ব্যাখ্যা দিয়ে নোটিশে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে যে কোনো দিন ভোট গ্রহণ করার সুযোগ রয়েছে। ২৮ জুলাইয়ের নির্বাচন স্থগিত করা না হলে উচ্চ আদালতে এর বিরুদ্ধে রিট করা হবে বলেও নোটিশে বলা হয়েছে।

নোটিশদাতা পাঁচ আইনজীবী হলেন- মুজাহিদুল ইসলাম, আল রেজা মো. আমির, জোবায়দুর রহমান, জহিরুল ইসলাম ও মুস্তাফিজুর রহমান। তাদের পক্ষে আইনজীবী শিশির মনির নোটিশটি পাঠিয়েছেন।

শিশির মনির সাংবাদিকদের বলেন, সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কথা বলে নির্বাচনের যে তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে, তা সঠিক নয়। কারণ সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আরও ৪২ দিন সময় আছে। এ সময়ের মধ্যে করোনাভাইরাসের প্রকোপ না কমলে বাধ্য হয়েই নির্বাচন করতে হবে।

করোনা পরিস্থিতিতে এ আসনে ভোট গ্রহণের দিন কয়েক দফা পেছানো হয়। সর্বশেষ গত ১৫ জুন নির্বাচন কমিশন ভোটের নতুন তারিখ ঘোষণা করে। ওই ঘোষণা অনুযায়ী বুধবার ভোট হওয়ার কথা।