ফরিদপুর জেলায় করোনা সংক্রমণের উর্ধ্বগতির মধ্যে মানবিক সহায়তায় এগিয়ে আসছেন ফরিদপুর জিলা স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থীরা। 

জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডার, প্রয়োজনীয় ওষুধ, রোগীর সঙ্গীদের খাবার, মাস্ক এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম বিতরণ করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

সম্প্রতি ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় ফরিদপুর জেলার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার পর তারা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ফরিদপুর জিলা স্কুলের সাবেক ছাত্রদের দীর্ঘ দুই ঘন্টাব্যাপী ভাচুর্য়াল আলোচনায় ফরিদপুরের করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহতা সম্পর্কে সম্যক ধারনা দেন ৯৪তম ব্যাচের সন্জয় সাহা। 

পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজের কোভিড ইউনিটে কর্মরত ডা. খান আরিফ হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা ও প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুলতার চিত্র তুলে ধরেন।

করোনায় ফরিদপুরে পরিস্থিতির ভয়াবহতা সম্পর্কে মানুষের অজ্ঞতা ও অসচেতনতা সম্পর্কে নানা অভিজ্ঞতার কথা জানান ৮৪তম ব্যাচের সাইফুজ্জামান চৌধুরী মুক্তা এবং ৮৬তম ব্যাচের সোহান।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অর্থ ও পরিকল্পনা উপকমিটির সদস্য কামরুজ্জামান কাফির সঞ্চলনায় ভার্চুয়াল সভায় করোনা চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত পরামর্শ দেন রাজধানীর হলি ফ্যামিলি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ডা. মির্জা আরিফুর রহমান এবং জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের ডা: তারিক আহমেদ চৌধুরী। 

করোনায় প্রাথমিক ও পরবর্তীতে ওষুধের ধরন ও ব্যবহার নিয়ে বিস্তারিত পরামর্শ দেন ফার্মাসিস্ট সাজ্জাদুল বারী উজ্জ্বল। 

মফস্বল ও গ্রামাঞ্চলের মানুষের মাঝে করোনা প্রতিরোধে সচেতন করে তুলতে নানা পরিকল্পনা তুলে ধরেন গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব রাজীব খান।  তিনি এসময় জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য জাতীয় গণমাধ্যম এবং সামাজিক প্রচার মাধ্যমে প্রচারণার প্রয়োজনীয়তার কথা জানান।   

আলোচনায় আরো অংশ নেন, সৈয়দ আনোয়ারুল হক মনা, সাজ্জাদুর রহমান লালন, মাহাবুব রশীদ, কাজল খন্দকার, নুরুল ইসলাম হান্নান, চিন্ময় কর, নাইমুল হক জোয়ারদার টিটু, ডা: মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান হাসান, মোহাম্মাদ তিতু, মোহাম্মাদ আশিকুল ইসলাম শশী, এ কে এম ফজলুল হক শিপন, ডা: শরীফ মো: ওয়াসিমুদ্দিন কলিন্স, ডা: মো: মোস্তাফিজুর রহমান লাবলু, মোহাম্মাদ খলীল, ডা: নাজিবুল হক লাবিব ইসলাম ও মো: মনিরুজ্জামান মনি।