গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, কাশ্মীর সংকট দক্ষিণ এশিয়া তথা সারাবিশ্বের জন্য হুমকি। বাংলাদেশ সরকার ও জনগণের উচিত কাশ্মীরিদের পাশে দাঁড়ানো। 

জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে গণভোট অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা রক্ষায় কাশ্মীর সংকটের সমাধান করতে হবে।

বৃহস্পতিবার 'কাশ্মীর সংকট এবং আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা' শীর্ষক একটি ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। সাউথ এশিয়া ইয়ুথ ফর পিস অ্যান্ড প্রসপারিটি সোসাইটি এ ওয়েবিনারের আয়োজন করে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে কাশ্মীরের জনগণের প্রতি বঙ্গবন্ধুর সমর্থনের বিষয় মনে করিয়ে দিয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, কাশ্মীরিদের বিশেষ স্বায়ত্তশাসন (আর্টিকেল-৩৭০) রদ করে ভারত এ অঞ্চলকে আরও অস্থিতিশীল করে তুলেছে। ভারত সরকারকে কাশ্মীরের জনগণের অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে।

ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু ভারতকে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় গণতন্ত্র চর্চার আহ্বান জানান। বাংলাদেশের সংবিধানের আলোকে কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী জনগোষ্ঠীর পাশে দেশের সরকার এবং রাজনৈতিক দলগুলোকে সহায়তা করার আহ্বানও জানান তিনি।

ওয়েবিনারে অংশ নেওয়া বক্তারা বলেন, কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি এ জনপদকে একটি সংঘাতময় পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

ওয়েবিনারে আলোচক হিসেবে অংশ নেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানী ড. দিলারা চৌধুরী, সাবেক রাষ্ট্রদূত সিরাজুল ইসলাম, সাবেক কূটনীতিক সাকিব আলী, নিরাপত্তা বিশ্নেষক কর্নেল (অব.) আশরাফ আল দ্বীন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান ড. সাইফুদ্দীন আহমেদ। ওয়েবিনারটি সঞ্চালনা করেন আয়োজক সংস্থার চেয়ারম্যান ড. সাজ্জাদুল হক।